এন.আই.মিলন, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি- দিনাজপুরের বীরগঞ্জে উপজেলার প্রশাসনের আয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগপ্রাপ্ত দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে।
১৬ অক্টোবর সোমবার বিকেলে বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলম হোসেন এর আন্তরিক সহযোগিতায় উপজেলার প্রশাসনের আয়োজনে পরিষদের সম্মেলন কক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগপ্রাপ্ত দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিক অনুদান প্রদান করেন দিনাজপুর-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল।
বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলম হোসেন এর সভাপতিত্বে আর্থিক অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাওয়া ৪ দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীর প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ প্রদান করা হচ্ছে। যা স্থানীয় এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল ৪ জনকে ১০ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা, বীরগঞ্জের কৃতি সন্তান ডাঃ ডিসি রায় ১০ হাজার টাকা, পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ শারমীন সুলতানা ২০ হাজার টাকা এবং শরিয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা ইয়াসমিন ১০ হাজার টাকা প্রদান করে বীরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনকে সহযোগিতা করেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেন, বর্তমানে ঝড়ে পড়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমে গেছে। অর্থের অভাবে কোন মেধাবী শিক্ষার্থী উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারবে না বাংলাদেশে এমন পরিস্থিত আর নাই। দরিদ্র কিন্তু মেধাবী, প্রয়োজনে এসব শিক্ষার্থীর লেখা পড়ার খরচ সরকার বহন করবে। কোন প্রতিভা চাপিয়ে রাখা যায় না। মেধা থাকলে তা বিকশিত হবেই। আমাদের সমাজে এখনও অনেক হৃদয়বান মানুষ আছে। যারা মেধাকে বিকশিত করতে সব ধরনের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। আজকের এই আয়োজন অন্তত তাই প্রমাণ করে। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে এমপি গোপাল বলেন, তোমাদের মেধাকে কোন অপশক্তি যারা ধর্মের নামে, বেহেস্তের নামে এবং আর্থিক অস্বচ্ছলতাকে পুজি করে ভিন্ন পথে প্রবাহিত করছে। তাদের দ্বারা প্রভাবিত হওয়া যাবে না। কারণ বেহস্ত দেয়ার মালিক একমাত্র সৃষ্টিকর্তা।
এ সময় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ঝাড়বাড়ী মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মো. আনোয়ার হোসেন, বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু আক্কাস আহমেদ, বীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য নুর ইসলাম নুর। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযুদ্ধ কমান্ডার অধ্যাপক কালিপদ রায়, বীরগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোশাররফ হোসেন বাবুল, মরিচা ইউপি চেয়ারম্যান আতাহারুল ইসলাম চৌধুরী হেলাল, সাতোর ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শেখ, মরিচা ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি ফারুকুজ্জামান চৌধুরী সহ আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও গন্যমান্য ব্যাক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, যে ৪ জন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছে তাদের মধ্যে বীরগঞ্জের শতগ্রাম ইউনিয়নের ঝাড়বাড়ী বাজার এলাকার প্রসাদপাড়া গ্রামের নুর ইসলাম ও রহিতন বেগমের কন্যা মেধাবী ছাত্রী রুনা আক্তার (১৮)। সে এবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খ বিভাগের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে সফলতার সাথে মেধা তালিকায় ১৭৫৪ তম স্থান পেয়েছে।
বীরগঞ্জ উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামের লেবু পাল ও শ্রীমতি পালের পুত্র উদ্ভব পাল (১৮)। সে এবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মেধা তালিকায় ক্রমানুসারে ২১১৩ তম স্থান পেয়েছে।
পাল্টাপুর ইউনিয়নের সাদুল্ল্যাহপাড়া মোঃ বজলুর রহমান ও রহেদা বেগমের ছেলে মোঃ সুমন ইসলাম (১৮)। সে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মেধা তালিকায় ক্রমানুসারে খ-ইউনিট থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২২৪৩ তম স্থান করে নিয়েছে।
এছাড়াও একই ইউনিয়নের ঘোড়াবান্দ গ্রামের ভ্যান চালক সমাজ উদ্দীন ও হাছিনা বেগমের পুত্র মোঃ হাছিনুর রহমান (১৮) ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মেধা তালিকায় স্থান নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পেয়েছে।