মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

১০ বছর আগেকার সময় বাংলাদেশের যে পুলিশ বাহিনী ছিলো তা এখন আর নেই। বর্তমানের পুলিশ বাহিনী জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদক দমনে নিজের জীবন পর্যন্ত উৎসর্গ করতে দিধা করেনা। পুলিশ বাহিনীকে সব ধরনের প্রশিক্ষন, অস্ত্র, সুযোগ- সুবিধা দিয়ে আধুনিক পুলিশবাহিনীতে রূপে গড়ে তুলেছে এই আ’লীগ সরকার।

আজ বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা থানার নবনির্মিত আধুনিক ভবনের ফলক উন্মোচন শেষে এক শুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উল্লেখিত কথা গুলো বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিগত সরকারের আমলে দেশে আইনশৃঙ্খলা বলতে কিছুই ছিলো না। মানুষের জানমালের কোন নিরাপত্তা ছিলনা। আ’লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে এনে। একমাত্র আ’লীগ সরকারেই পারে দেশে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে, দেশের উন্নয়ন করতে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেন, দেশের ইতিহাসে যে উন্নয়ন হয়েছে তার কয়েকগুণ বেশি উন্নয়ন করেছে বর্তমানের আ’লীগ সরকার। দেশের উন্নয় অব্যাহত রাখতে হলে আবারো আ’লীগ সরকারের নৌকা মার্কায় ভোট দিতে হবে।

তিনি বলেন, স্থানীয় সাংসদ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিতা সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোতাহার এমপি একজন খুবই দক্ষ লোক। তার কাছ থেকে আমার অনেক শিক্ষার আছে। তিনি এলাকার উন্নয়নের জন্য কঠোর পরিশ্রম করেন। মোতাহার হোসেন একজন ঠাণ্ডা ও ধৈর্যশীল মানুষ। এলাকার উন্নয়নে যে কাজ করার জন্য তিনি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন, সেই কাজ পার না হওয়া পর্যন্ত তিনি তার পিছনে লেগেই থাকবেন। তাই এই এলাকার সার্বিক উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে হলে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে মোতাহার হোসেনকে নির্বাচিত করতে হবে।

এছাড়া সন্ত্রাস, জঙ্গি, মাদক নির্মূলে সরকারের পাশাপাশি সকল দেশবাসীকে এগিয়ে আসার আহবান জানান ঐ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি।

লালমনিরহাট জেলার পুলিশ সুপার এস,এম রশিদুল হকের সভাপতিত্বে উক্ত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথিরূপে বক্তব্য রাখবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন।
এসময় বিশেষ অতিথিরূপে বক্তব্য রাখেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোতাহার হোসেন এমপি, সংরক্ষিত মহিলা আসন-৩০২ এর সংসদ সদস্য এ্যাড সফুরা বেগম রুমী, রংপুর রেঞ্জের পুলিশের ডি,আই,জি বিপিএম, পিপিএম খন্দকার গোলাম ফারুক, লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ শফিউল আরিফ, লালমনিরহাট জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড মতিয়ার রহমান প্রমুখ। এরপরে তিনি স্থানীয় ডাকবাংলা মাঠে হাতীবান্ধা উপজেলার আ’লীগের জনসভায় যোগ দেন এবং বক্তব্য রাখেন।

উল্লেখ্য! সারা দেশে পুলিশ বিভাগের ১০১ টি জরাজীর্ণ থানা ভবন টাইপ প্লানে নির্মাণের উদ্যোগে একটি প্রকল্প হাতে নেয় সরকার। স্বারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অর্থায়নে এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায় গণপূর্ত বিভাগ। ওই প্রকল্পের আওতায় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় ৬ কেটি ৮ লক্ষ ৫৮ হাজার টাকা ব্যায়ে নির্মাণ হয়েছে ৪ তলা বিশিষ্ট্য অত্যাধুনিক একটি থানা ভবন।

ওই ভবনে রয়েছে, পুরুষ, নারী, শিশু ও কিশোরের জন্য পৃথক পৃথক উন্নত মানের ৪ টি হাজত খানা, প্রাথমিক চিকিৎসা কেন্দ্র, ডিএসবি, এসআই, এএসআইদের জন্য পৃথক পৃথক অফিস। নারী ও পুরুষ পুলিশ সদস্যদের জন্য পৃথক পৃথক উন্নত মানের ২ টি ব্যারাক, কনফারেন্স রুম, অত্যাধুনিক নিরাপদ অস্ত্রঘর, আধুনিক সার্ভিস ডেলিভারী রুম ও অভ্যর্থনা কেন্দ্র।

সুত্র মতে, হাতীবান্ধা থানা ভবনটি নিমার্ণের জন্য ২০১৪ সালের ২৯ মার্চ ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি’র সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন এমপি।