১২ টি শ্রমিক সংগঠনের উদ্যোগে গঠিত ‘‘বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সলিডারিটি কমিটি ফর রোহিঙ্গা ’’ এর উদ্যোগে আজ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার, সকাল ১০.৩০ টায় ঢাকা শহরের জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় মিয়ানমারের বাণিজ্য সুবিধা বন্ধ করো, অবিলম্বে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করো, বাংলাদেশের শ্রমিক এবং শ্রমমান রক্ষা করো ’ আহবানে হাজারো শ্রমিক অনশন অনুষ্ঠিত হয়।
কমিটির কো-অর্ডিনেটর, শ্রমিক নেতা জনাব আমিরুল হক্ আমিন এর সভাপতিত্বে অনশনে বক্তব্য রাখেন : কমিটির যুগ্ন কো-অর্ডিনেটরবৃন্দ সর্বজনাব ঃ এম দোলোয়ার হোসেন, জনাব কামরুল হাসান, কাজী মোহাম্মদ আলী, রফিকুল ইসলাম বাবুল, শামীমা শিরিন, মিসেস আরিফা আক্তার, মোঃ ফুলবাবু, রফিকুল ইসলাম রফিক, মোঃ নাসিমা আক্তার ও মিস কুলসুম আক্তার প্রমুখ।
অনশনের ঘোষনা
১. বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দেয়ায় কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।
২. অবিলম্বে মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের উপর পরিচালিত গণহত্যা, ধর্ষন ও লুন্ঠন বন্ধ করার দাবী জানানো হয়।
৩. অবিলম্বে এই ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পূর্ণ নাগরিকত্বসহ মিয়ানমারে নিরাপদ প্রত্যাবর্তন শুরু করার জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতি দাবী জানানো হয়।
৪. ইউরোপ আমেরিকাসহ সকল রাষ্ট্র এবং সম্প্রদায়কে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তনের জন্য সোচ্চার ভুমিকা গ্রহণ করার আহবান জানানো হয়।
৫. চীন, রাশিয়া, ভারত সহ যে সকল রাষ্ট্র এখনও রোহিঙ্গা সমস্যায় দ্বিধাদ্বন্দে ভুগছেন, তাদেরকে অবিলম্বে সমস্ত দ্বিধাদ্ধন্দ পরিত্যাগ করে রোহিঙ্গাদের পক্ষে পদক্ষেপ গ্রহণের আহবান জানানো হয়।
৬. ইউরোপ, আমেরিকাসহ যে সকল রাষ্ট্র এবং সরকার মিয়ানমারে বাণিজ্য সুবিধা প্রদান করছেন, অবিলম্বে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান না করলে তাদের বাণিজ্য সুবিধা স্তগিত করার আহবান জানানো হয়।
৭. বায়ার এবং ব্রান্ড সহ বহজাতিক কোম্পানি সমূহকে অবিলম্বে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান না করলে মিয়ানমারের সাথে পরিচালিত বাণিজ্য সম্পর্ক প্রত্যাহার করার দাবী জানানো হয়।
৮. সকল আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীকে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান না করলে মিয়ানমারে বিনিয়োগ বন্ধের দাবী জানানো হয়।
৯. বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহণকারী ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মানবিক সাহায্য প্রদান করা এবং অব্যাহত রাখার জন্য সকল আন্তজার্তিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান জানানো হয়।
১০. রোহিঙ্গা সমস্যার দ্রুত সমাধান না হলে ৫ লক্ষাধিক কর্মক্ষম রোহিঙ্গার বাংলাদেশের শ্রম বাজারে অবৈধ অনুপ্রবেশ এর ফলে বাংলাদেশের শ্রমিক এবং শ্রম মানের যে সমূহ বিপদ ও অবন্নতি ঘটবে সে ব্যাপারে সকল আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংগঠন, মানবাধিকার সংগঠন, বহুজাতিক কোম্পানি, উন্নয়ন সংস্থা সহ সকল রাষ্ট্র এবং সম্প্রদায়কে সজাগ থাকার জন্য আহবান জানানো হয়।