আলোকিত মানুষ গড়ার প্রত্যয়দীপ্ত ও পরীক্ষিত সিলেবাসে পরিচালিত ইকরা বাংলাদেশ স্কুল হবিগঞ্জের উদ্যোগে বাৎসরিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১১ নভেম্বর শনিবার সকাল থেকেই ছোট্ট সোনামণি শিক্ষার্থীদের মধ্যে অন্যরকম এক আনন্দের উপলক্ষ হয়ে আসে এই প্রতিযোগিতা। প্রতিবছরের মতো এবারও প্রত্যেক শিক্ষার্থী এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। কেউ কুরআন তিলাওয়াতে, কেউ হামদ/নাতে, কেউ মুখস্থ হাদিস, কেউ মাসাআলা-মাসাইল বলায় অংশ নেয়। প্রতিষ্ঠানের হল রুমে আয়োজিত প্রতিযোগিতাকে সৌন্দর্যম-িত করতে পরিশ্রম করেন শিক্ষকগণ। মুফতি আনোয়ার আমিরের সভাপতিত্বে বিচারের দায়িত্ব পালন করেন, মুফতি শাহ জুলকারনাইন, মাওলানা যুবাইর মাদানী, মাহমুদুর রহমান, মাওলানা সাজিদুল ইসলাম, রাকিব মিয়া প্রমুখ।
ইকরা হবিগঞ্জের প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা মাসউদুল কাদির বলেন, ছোট্ট কচিমণিদের এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সাহস তৈরিতে এই প্রতিযোগিতা অনেক বড় ভূমিকা রাখে। ছোট্ট ছোট্ট এই কর্মসূচি থেকেই ভবিষ্যৎকর্মী বেরিয়ে আসবে। যারা সমাজ পরিচালনা করবে। আমরা সবার আগে অন্য সব শিক্ষার সঙ্গে নৈতিক শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। বিশ্বখ্যাত আলেম আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ-এর সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ইকরার এই শিক্ষা সিলেবাস সত্যিই ভিন্ন কিছু। একজন শিশুকেই কেবল গড়ে তুলে না, বরং শিশুর সঙ্গে পরিবারও গড়ে ওঠে। ইকরা বাংলাদেশ হবিগঞ্জের প্রধান উপদেষ্টা মশিউর রহমান শামিম বলেন, আমার নিজের বাচ্চাকেও এখানে দিয়েছি। নৈতিক দিক থেকে এখানকার পড়াশোনা আমাকে মুগ্ধ করেছে।