জকি ক্লাব গার্লস আমন্ত্রণমূলক আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দল। সোমবার দিবাগত রাত ১টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ‘চ্যাম্পিয়ন’ মেয়েদের বহনকারী বিমান অবতরণ করে।

 

বিমানবন্দরে বাংলাদেশ দলকে স্বাগত জানান যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, এমপি। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য, উইমেন্স কমিটির চেয়ারম্যান ও ফিফার নির্বাচিত সদস্য মিস মাহফুজা আক্তার কিরণ, বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগসহ অন্যান্যরা।

 

বিমানবন্দরে মেয়েদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। মিষ্টিমুখ করানো হয়। এরপর কেট কেটে শিরোপা জয় উদযাপন করা হয়।

 

হংকংয়ে চারজাতি আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ দলের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপ। ৫ এপ্রিল বিকেলে ওয়ালটন গ্রুপের পক্ষ থেকে মেয়েদের সংবর্ধনা দেওয়া হবে। আকর্ষণীয় হোম অ্যাপ্লায়েন্স দিয়ে উৎসাহিত করা হবে। এমনটাই জানিয়েছেন ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন)

 

গেল রোববার টুর্নামেন্টের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক হংকং অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দলকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে চারজাতি ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। লিগ পদ্ধতির এই টুর্নামেন্টে তিন ম্যাচের ৩টিতেই জিতে পূর্ণ ৯ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে শিরোপা জয় নিশ্চিত করে গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

 

তার আগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মালয়েশিয়াকে ১০-১ গোলে হারিয়ে শুভসূচনা করে বাংলাদেশের কিশোরীরা। পরের ম্যাচে ইরানের মেয়েদের ৮-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জয়ের পথে স্পষ্টত এগিয়ে যায়। শেষ ম্যাচে ৬-০ গোলে হংকংকে উড়িয়ে দেয় মারিয়া-তহুরারা। হয়ে যায় চ্যাম্পিয়ন।

 

বাংলাদেশ দলের ফরোয়ার্ড তহুরা খাতুন তিন ম্যাচের দুটিতে হ্যাটট্রিক ও অপর ম্যাচে জোড়া গোল করে মোট ৮ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পান। আর ৬ গোল করা শামসুন্নাহার পান টুর্নামেন্টসেরার ‍পুরস্কার।

 

৩০ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত হংকং, বাংলাদেশ, ইরান ও মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় চারজাতি এই ফুটবল টুর্নামেন্ট।