ঢাকা, ২১ অগ্রহায়ণ (৫ ডিসেম্বর) :
স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সাথে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত জাতিসংঘ আবাসিক সমন্বয়কারী ও জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি আবাসিক প্রতিনিধি আজ তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেন।
এসময় তারা বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জন, সংসদে আইন প্রণয়ন প্রক্রিয়া, নারীর ক্ষমতায়ন, সংসদ সদস্য ও সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ বিষয়ে আলোচনা করেন।
স্পিকার বলেন, ইউএনডিপি সুদীর্ঘকাল থেকে বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী। সংসদ সদস্য ও সংসদের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ইউএনডিপি বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সাথে অতীতে যেমন প্রকল্পভিত্তিক কাজ করেছে তেমনি বর্তমানেও নতুন কর্মসূচিভিত্তিক সমঝোতা চুক্তির আওতায় কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে ইউএনডিপি’র সহযোগিতার প্রশংসা করেন এবং আগামীতেও এ সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
জাতিসংঘ আবাসিক প্রতিনিধি বলেন, বাংলাদেশে সংসদ,প্রশাসনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে নারী সিদ্ধান্ত গ্রহণ পর্যায়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন যা উৎসাহব্যঞ্জক। বাংলাদেশকে তিনি নারীর ক্ষমতায়নের রোল মডেল বলে অভিহিত করেন। বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের প্রথম নারী স্পিকার ও কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এসোসিয়েশনের প্রথম নারী চেয়ারপার্সনের দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি স্পিকারকে অভিনন্দন জানান।
স্পিকার বলেন, আর্থসামাজিক উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশ এখন টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে কাজ করে যাচ্ছে। স্পিকার বলেন, বাংলাদেশে নারীর সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় যুক্ত হয়েছে। বর্তমান সংসদে
৭২ জন নারী সংসদ সদস্য রয়েছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে নারী ও শিশুদের জন্য প্রত্যেক মন্ত্রণালয়ে আলাদাভাবে বাজেটে বরাদ্দ থাকছে- যার সুফলভোগীরা উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে।