সুজন-সশাসনের জন্য নাগরিক কেন্দ্রিয় কমিটি স্থানীয় সমস্যা সমাধানের জন্য ২২ অক্টোবর ২০১৭ কে দাবি দিসব হিসেবে ঘোষণা করে। সুজনের কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সুজন-সুশানের জন্য নাগরিক ঢাকা জেলা ও মহানগর কমিটি অবিলম্বে যানজট নিরসনের দাবিতে আজ সকাল ১০.৩০টা হতে ১১.৩০ পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করেন। মানববন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা জেলা কমিটির সাধারণ স¤পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা জনাব আবুল হাসনাত। মানববন্ধনে সুজন নেতৃবৃন্দ যানজট নিরসনের জন্য ১২ দফা সম্বলিত দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো;
১. সিটির বাইরের গাড়ীগুলো নির্দ্দিষ্ট টার্মিনালে অবস্থান করবে। কোন অবস্থায় সিটির ভিতরে ঢুকতে পারবেনা।
২. পন্যপরিবহনের জন্য ট্রাক এবং কাভার্ড ভ্যান কোন অবস্থায় রাত ১০.০০টার আগে সিটিতে ঢুকতে পারবেনা।
৩. ফুটপাতে বা রাস্তা দখল করে প্রাইভেট কার পার্কিং নিষিদ্ধ করতে হবে। সর্বত্র জায়গা ও সময়ের মূল্যানুসারে পার্কিং ফি নির্ধারণ করা এবং রাজউকের বিধি অনুসারে প্রতিটি মার্কেটের নিজস্ব পার্কিং ব্যবস্থা থাকতে হবে।
৪. যানজট সহনীয় মাত্রায় আনার জন্য বিশেষ কিছু নম্বর ছাড়া সব প্রাইভেট কার চলাচলের ক্ষেত্রে জোড় বিজোড় পদ্ধতি চালু করতে হবে।
৫. গণপরিবহন ব্যবস্থা জোরদার বা বৃদ্ধি করতে হবে। সমাজের উচু স্তরের মানুষকে গণপরিবহন ব্যবহারে উদ্ভুদ্ধ করতে এই ব্যবস্থাটিকে উন্নত করতে হবে।
৬. প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণে লাইসেন্স সীমিতকরণ, আমদানীর ক্ষেত্রে কর বৃদ্ধি ও কঠোরতা অবলম্বন করতে হবে।
৭. আলোচনা সাপেক্ষে সায়দাবাদ, মহাখালী বাস টার্মিনাল স্থানান্তর করতে হবে।
৮. কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে সচিবালয়সহ অন্যান্য অফিস আদালত বিকেন্দ্রীকরণ করতে হবে। আর নতুন করে যেন ঢাকায় কলকারখানা না হতে পারে সে ব্যবস্থা নিতে হবে।
৯. উল্টোপথে গাড়ী চলাচল কঠোর হাতে দমন করতে হবে।
১০. ঢাকা মহানগরীতে বর্তমানে যে রেল যাতায়াত ব্যবস্থা রয়েছে, তার উন্নয়ন করতে হবে। বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জ, জয়দেবপুর, গাজীপুর নরসিংদীসহ নিকটবর্তী জনবসতি শহরগুলোর সঙ্গে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি করতে হবে।
১১. দখলকৃত সকল খালগুলো দখল মুক্ত করতে হবে। ঢাকার চারপাশের নদী ও আভ্যন্তরীণ খালগুলি সংস্কার করে সমন্বিতভাবে নৌ-পরিবহণ ব্যবস্থার উন্নয়ন করতে হবে।
১২. স্কুল-কলেজগুলোতে ভাল মানের বাস সার্ভিস চালু করতে হবে। যাতে করে স্কুলগামী শিক্ষার্থীরা একজনের জন্য একটি প্রাইভেটকার নীতি থেকে সরে আসতে পারে। সেক্ষেত্রে সিএনজির মূল্য ক্যাটাগরী ভিত্তিতে বৃদ্ধি করতে হবে।
মানববন্ধন কর্মসূচিতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত থেকে আলোচনা করেন; সুজনের মহানগর কমিটির সাধারণ স¤পাদক জনাব যোবারুল হক নাহিদ, সাংগঠনিক স¤পাদক জনাব জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা কমিটির সাংগঠনিক স¤পাদক আডভোকেট রাশিদা আক্তার শেলী, মহানগর কমিটির সহ সভাপতি জনাব ক্যামেলিয়া চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন, সহসাধারণ স¤পাদক মো: সেলিম, সেলিনা হাফিজ, পরিবেশ বিষয়ক স¤পাদক মো: জাবেদ পাভেজ, সহ সাংগঠনিক স¤পাদক হাবিবুর রহমান, আডভোকেট মুশতারী বেগম, মো: ইব্রাহিম ও কানজি ফাতিমা প্রমূক।
মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে সুজন নেতৃবৃন্দ ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন।