বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর।বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকার আবারও ২০১৪ সালের মতো নির্বাচন করতে ‘কু-রাজনীতি’ শুরু করেছে। বিএনপিকে দূরে রাখার জন্য যা যা করা দরকার, তা-ই শুরু করেছে সরকার।

আজ শনিবার ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ মন্তব্য করেন। বিএনপির জোট শরিক কল্যাণ পার্টির দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘এই কু-রাজনীতি করে কী আনতে চান? আপনারা নির্বাচন আবারও করতে চান ২০১৪ সালের মতোই। ২০-দলীয় জোট, বিএনপিকে দূরে রাখার জন্য যা যা করা দরকার, তা-ই তো শুরু করেছেন।’ সরকারকে হুঁশিয়ার করে ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ আর কখনোই ২০১৪-এর মতো নির্বাচন হতে দেবে না। বাংলাদেশে মানুষকে আন্ডার এস্টিমেট করবেন না। সবকিছু যে সহ্য করে নেবে, সবকিছু যে মেনে নেবে, এটা মনে করবেন না।’

সৌদি আরবে খালেদা জিয়ার টাকা পাচারের অভিযোগের বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই খবর পাওয়ার পর আমরা তন্নতন্ন করে খুঁজছি সব জায়গায়। আমরা জিজ্ঞেস করেছি রাষ্ট্রদূতদের, এর কোনো ভিত্তি আছে কি না? কোনো ভিত্তি নেই, কোনো সত্যতা নেই।’

কল্যাণ পার্টির সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান গুম হয়ে যাওয়ার বিষয়ে ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘একটি পার্টির সাধারণ সম্পাদককে পর্যন্ত গুম হয়ে যেতে হলো। কোনো খবর নেই আজকে ৯৭ দিন। একজন সাবেক রাষ্ট্রদূতকে গাড়ি থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সংসদ সদস্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ডাক্তার, প্রকৌশলীসহ আমাদের নেতা ইলিয়াস আলী, কমিশনার চৌধুরী আলমসহ অসংখ্য মানুষকে গুম করা হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘কোথায় যাবেন? এরা এভাবে ভিন্নমত যে পোষণ করবে, তাদের মতের বাইরে যে যাবে, এভাবে তাদের তারা (সরকার) গুম করে দেবে। সেই দলটিকে আমরা কি গণতান্ত্রিক দল বলতে পারি? এই দলটি (আওয়ামী লীগ) গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছে অতীতে। যখনই তারা ক্ষমতায় আসে, তাদের আসল ফ্যাসিস্ট চেহারাটা পরিষ্কার হয়ে ফুটে ওঠে।’

কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, সরকার তার সব ক্ষমতা নিয়ে বিএনপি ও ২০-দলীয় জোটকে নিষ্ক্রিয়, নিস্তেজ, স্তব্ধ করার জন্য সব প্রকার ষড়যন্ত্রমূলক ও অষড়যন্ত্রমূলক পদক্ষেপ নিচ্ছে। তিনি বলেন, ‘আমরা যদি সাবধান না থাকি, তাদের যেকোনো রকম দুরভিসন্ধিমূলক পদক্ষেপের মধ্যে পড়ে আমরা বিপথগামী হতে পারি। আমার আবেদন থাকবে, তাদের উসকানিমূলক কর্মকাণ্ডে আমরা পা দেব না।’

কল্যাণ পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব নুরুল কবির ভূঁইয়ার পরিচালনায় আলোচনা সভায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জাগপার সভাপতি রেহানা প্রধান, এনডিপির চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্তজা, ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, কল্যাণ পার্টির নেতা ইকবাল হাসান মাহমুদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।