জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহ শৈলকুপার জামিরুদ্দিন শেখ, বয়স ১০১ বছর। অসুস্থতার সুযোগে ৫২ বিঘা সম্পত্তি জোর করে লিখে নিয়েছেন ছেলেরা। জমি থেকে একমাত্র বোনকেও করেছেন বঞ্চিত। কোন ছেলেই তাকে খেতে দেয়না বলে তিনি জানান। কথাগুলো বলছিলেন ঝিনাইদহ শৈলকুপার বিপ্রবগদিয়া গ্রামের মোঃ জামিরুদ্দিন শেখ। পরবর্তিতে নিজের জমি উদ্ধারের জন্য আদালতে মামলা করেন। এখন ১০১ বছর বয়সেও নিজের সম্পত্তি উদ্ধারের জন্য আদালতে ঘুরতে হচ্ছে তাকে। মামলার কারণে ছেলেদের অত্যাচার বেড়ে গেছে বলে জানান বৃদ্ধ জামিরুদ্দিন শেখ। তিনি বলেন, শুধু মেজ ছেলে ছাড়া আর সব ছেলেই একাধিকবার তার গায়ে হাত তুলে মেরেছেন। ডিসি স্যারের কাছে গিয়েছিলেন তার দুঃখের কথা জানাতে। ডিসি স্যার টেলিফোনে তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দেন শৈলকুপার ইউএনওকে। গতকাল বৃদ্ধ জামিরুদ্দিন শেখ গিয়েছিলেন শৈলকুপা ইউএনও অফিসে। ইউএনও ইউএনও মহোদয় বলেন, বৃদ্ধ জামিরুদ্দিন শেখ যা বর্ণনা করেছেন, তা অত্যন্ত লজ্জাজনক ঘটনা। জামিরুদ্দিন শেখের বিষয়ে প্রয়োজনিয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে। ইউএনও ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আরো বলেন,মাত্র ৫২ বিঘা কেন! ৫২ হাজার বিঘা জমির চেয়েও বেশি মূল্যবান বাবা-মা এর মুখে হাসি ফোটানো। হতভাগা সন্তানেরা! বৃদ্ধ লোকটির বর্ণনা যতি সত্য হয়, তার ছেলেদেরও তাদের সন্তানদের হাতে মার খাওয়ার জন্য এখন থেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে। কারণ এটিই প্রকৃতির নিয়ম।