ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
২৩শে ফেব্রুয়ারী শুক্রবার দুপুরে ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় ভাটর বাজারে জরিনা খাতুন (৬০) নামে এক অসহায় দিনমুজরি বৃদ্ধার বাড়িঘর উচ্ছেদ করে মাটির সাথে দিয়েছে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় ওই মহিলা পরিবার নিয়ে খোলা আকাশের নিচেয় মানবতার জীবন যাপন করছে। ভুক্তভোগী পরিবার প্রশাসনের উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নিকট তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন। এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীর অভিযোগে জানা গেছে, শৈলকুপা উপজেলার ভাটই বাজারে ১৪০ নং মৌজার ২১০ নং খতিয়ানে বৃট্রিশদের রেখে যাওয়া পরিত্যক্ত জমিতে ৪০ বছর ধরে বাড়িঘর তৈরি করে বৃদ্ধা জরিনা খাতুন তার স্বামী মহিউদ্দিন ও মেয়ে রেকেয়া খাতুনকে বসবাস করে আসছে। এরই মধ্যে তার স্বামী মারা যান। এই সুযোগে শুক্রবার দুপুরে এলাকায় সুরোজ মিয়া, আবু তালেব, খোকন, বাবু সংঘবদ্ধ হয়ে তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ওই বৃদ্ধা মহিলার বাড়িঘর, ভাংচুর ও লুটপাট করে মাটির সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে এলাকার কেউ প্রতিবাদ বা মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। এমনকি তারা কৌশলে অসহায়ত্বের সুযোগে আদালতে থেকে ১৪৪ধারা জারি করে নিয়েছেন। ভুক্তভোগী জরিনার ভাই আশরাফুল ইসলাম মাফি দাবি করেন, তারা এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় জাল তৈরি করে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বাড়িঘর উচ্ছেদ ও লুটপাট করে মাটির সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। এব্যাপারে ঝিনাইদহের শৈলকুপার ১৪নং দুধসর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সায়ুব জোয়ার্দ্দার জানান, বাড়িঘর উচ্ছেদ করা ঠিক হয়নি। এটা অন্যায়।