কুইক রেন্টাল পাওয়ার প্লান্টের ভর্তুকি এবং ক্ষমতাসীন দলের আত্মীয়-স্বজনদের লুটপাটের সুযোগ করে দিতেই বিদ্যুতের দাম ফের বাড়ানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। বৃহস্পতিবার বিকেলে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ প্রতিক্রিয়া জানান। এক প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, ‘এ বিষয়ে দলীয় ফোরামে আলাপ-আলোচনা শেষে কর্মসূচির বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।’
অ্যাডভোকেট রিজভী বলেন, ‘ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ নেতা ও তাদের আত্মীয়স্বজনদের লুটপাটের আরও বেশি সুযোগ করে দিতেই বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে। আসলে জনগণের প্রতি ভোটারবিহীন সরকারের দায়বদ্ধতা নেই বলেই জনগণকে নিষ্পেষণ ও অপমান করতে এই দাম বৃদ্ধি। বর্তমান সরকার একের পর এক জনবিরোধী কার্যকলাপ অব্যাহত রেখেছে। বর্তমানে দেশের অর্থনীতি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমায় বাংলাদেশে বিদ্যুতের উৎপাদন খরচও কমার কথা। কিন্তু বিদ্যুতের দাম না কমিয়ে উল্টো বাড়ানো নজিরবিহীন ও গণবিরোধী। বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ব্যবহৃত জ্বালানি (ফার্নেস অয়েল) তেলের দাম আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করা হলে খরচ আরও কমানো যেতো।’
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির মূল কারণ হচ্ছে কুইক রেন্টাল প্রকল্পের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদন। এসব প্রকল্পের পেছনে জড়িত ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ নেতাদের আত্মীয়স্বজন। এদের লুটপাটের আরও বেশি সুযোগ করে দিতেই বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিদ্যুৎ-জ্বালানি এখন লুটের খাত।’
বিএনপির পক্ষ থেকে রিজভী আরও বলেন, ‘আজ  (বৃহস্পতিবার) বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। যা শুধু অযৌক্তিক ও গণবিরোধী নয়, ভোটারবিহীন সরকারের লুটপাট নীতির বহিঃপ্রকাশ। গোটা দেশটাকে গিলে খেতেই রক্তচোষা সরকার উন্মত্ত হয়ে পড়েছে। তারা ব্যাংক, বীমা, শেয়ারবাজারসহ সব অর্থনৈতিক খাতকে তিলে তিলে খেয়ে ফেললেও তাদের স্বাদ মেটেনি। তাই বারবার গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে গরীবের রক্ত পান করাটাই যেন তাদের মুখ্য উদ্দেশ্য।’
এ সময় বিএনপি একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে এর প্রতিবাদে কোনো কর্মসূচি দেবে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, এ বিষয়ে আলোচনা করে আপনাদের পরে জানানো হবে।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মীর সরফত আলী সপু প্রমুখ।