বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশনের উদ্যোগে আজ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং সোমবার সকাল ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাব সম্মুখে “রোহিঙ্গাদের বিনামূল্যে টেলিকম সেবা প্রদান ও অবৈধ সিম বিক্রির অপরাধে অপারেটরদের শাস্তির দাবিতে” মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ। বক্তব্য রাখেন জাগো বাঙ্গালীর সভাপতি মেজর (অবঃ) ডাক্তার হাবিবুর রহমান, সাবেক সংসদ সদস্য হুমায়ুন কবির হিরু, কর্মসংস্থান আন্দোলনের সভাপতি মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট কবির চৌধুরী তন্ময়, সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক কাজী আমানুল্লাহ মাহফুজ, প্রচার সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর কামরুল আহসান, বাংলাদেশ সাধারণ নাগরিক সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা এড. বাদল প্রমুখ।

বক্তরা বলেন, রোহিঙ্গাদের মাঝে অবৈধভাবে সিম বিক্রির প্রবনতা নতুন নয়। তবে গত ২৫ আগষ্ট থেকে ব্যাপক হারে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ ও প্রকাশ্যে রোহিঙ্গাদের মুঠোফোন ব্যবহার করার চিত্র গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। আজ পর্যন্ত প্রায় ২ লক্ষ সিম বিক্রি করেছে অপারেটরগুলো বলে ধারণা করা যায়। তাদের লক্ষ্য ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা গ্রাহক। ১টি সিম ৫০০ থেকে ১০০০ টাকায় বা আরো বেশি মূল্যে বিক্রি করেছে একশ্রেণীর প্রতারক এজেন্ট। আর এতে সহযোগিতা করেছে অপারেটররা। মায়ানমার সরকারের গোয়েন্দারা এ সিম ব্যবহার করেছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে হবে। গত ২৩ সেপ্টেম্বর টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেছেন, রোহিঙ্গাদের মাঝে সিম বিক্রি করা যাবে না। স্বল্পমূল্যে টেলিটকের বুথে কথা বলতে পারবে রোহিঙ্গারা। কিন্তু আমাদের প্রশ্ন বুথ থেকে রোহিঙ্গারা কার সাথে কথা বলবে? কিভাবে কথা বলবে? কারণ তাদের নিকট জনের কাছে তো মুঠোফোন থাকবে না। বিষয়টি আরো চিন্তা ভাবনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন অনুযায়ী অবৈধ সিম বিক্রির অপরাধে প্রতি সিমের বিপরীতে ৫০ ডলার জরিমানার বিধানের কি হবে। তাই আইন অনুযায়ী অপারেটরদের বিরুদ্ধে জরিমানা বাবদ ৮০০ কোটি টাকা এবং আজ অবধি অবৈধ সিমের কলের মূল্য ও রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বিঘেœর অপরাধে অপারেটরদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এতে করে আদায় করা যাবে প্রায় ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এ অর্থ আদায় করে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা করে রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ হিসেবে বিতরণ করা হোক। সেই সাথে টেলিটকের পাশাপাশি অন্যান্য অপারেটরদেরও টু-জি প্রযুক্তির টেলিকম সেবা বিনামূল্যে প্রদান করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।