বাংলাদেশ যুব গেমসের চুড়ান্ত পর্বের দ্বিতীয় দিন রোববার শ্যুটিং ডিসিপ্লিনের ৬টি স্বর্ণ পদকের লড়াই শেষ হয়েছে। শ্যুটিংয়ের প্রথম স্বর্ণজয়ী পাবনার মো. মেহেদী হাসান লিমন। পাবনা রাইফেল ক্লাবের এই শ্যুটার .১৭৭ ওপেন সাইট এয়ার রাইফেল (তরুণ) বিভাগে ২৪৭ স্কোর গড়ে স্বর্ণ জিতে নেন। এই ইভেন্টে গুলশান শুটিং ক্লাবের ফজলে রাব্বি ২৩৯ স্কোর গড়ে রুপা এবং নেত্রকোনা রাইফেল ক্লাবের ফারদিন মো. অর্ণব ২৩৬ স্কোর গড়ে তাম্র পদক জেতেন। একই ইভেন্টে (তরুণী) বিভাগে পিরোজপুর রাইফেল ক্লাবের জিন্নাত কবির সূচনা ২৩৫ স্কোর গড়ে স্বর্ণ, মেট্রোপলিটন শুটিং ক্লাব চট্টগ্রামের সায়রা আরেফিন ২৩১ স্কোর গড়ে রুপা এবং বগুড়া রাইফেল ক্লাবের শিল্পা রায় ২১২ স্কোর গড়ে তাম্র জেতেন।
তরুণদের .১৭৭ ম্যাচ এয়ার পিস্তলে নেত্রকোনা রাইফেল ক্লাবের শেখ শাহজালাল সাদমান ২৭০ স্কোর গড়ে স্বর্ণ, শুলশান শুটিং ক্লাবের রওনক চৌধুরী ২৬২ স্কোর গড়ে রৌপ্য এবং মেট্রোপলিটন শুটিং ক্লাব চট্টগ্রামের প্রতিযোগি শাকের আহমেদ ২৫৩ স্কোর গড়ে তাম্র পদক জেতেন। একই ইভেন্টে তরুনী বিভাগে কুষ্টিয়া রাইফেল ক্লাবের নিলুফার ইয়াসমিন ২৭৩ স্কোর গড়ে স্বর্ণ, শুলশান শুটিং ক্লাবের শামী আক্তার ২৬৪ স্কোর গড়ে রৌপ্য এবং পাবনা রাইফেল ক্লাবের নাবিলা তাবাসসুম ২৫৬ স্কোর গড়ে তাম্র জেতেন।
তরুণদের .১৭৭ ম্যাচ এয়ার রাইফেল ইভেন্টে কিশোরগঞ্জ রাইফেল ক্লাবের সাকিবুল আলম আল-আমিন ২৮১ স্কোর গড়ে স্বর্ণ, মেট্রোপলিটন শুটিং ক্লাব চট্টগ্রামের কাজী সাজেদুল হোসেন ২৭৭ স্কোর গড়ে রুপা এবং নেত্রকোনা রাইফেল ক্লাবের মুশফিকুর রহমান ২৭৫ স্কোর গড়ে তাম্র পদক জেতেন। তরুণীদের এই ইভেন্টে কুষ্টিয়া রাইফেল ক্লাবের ফারবিন চৌধুরী রিথীকা ২৯৪ স্কোর গড়ে স্বর্ণ, শুলশান শুটিং ক্লার ঢাকার মায়েদা মুমতাহিনা ২৯০ স্কোর গড়ে রুপা এবং চট্টগ্রাম রাইফেল ক্লাবের সুমাইয়া মোরশেদ ২৭৯ স্কোর গড়ে তাম্র জেতেন।
খেলা শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার (মেডেল) এবং সার্টিফিকেট তুলে নেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের উপ-মহাসচিব এবং ভলিবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু। এ সময় বাংলাদেশ শুটিং স্পোর্টস ফেডারেশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
স্বর্ণ জয়ের অনুভূতি জানিয়ে লিমন বলেন, ‘খুবই আনন্দ লাগছে। ভাষায় প্রকাশের নয়। এমন একটি প্রতিযোগিতা আয়োজন করায় আমি অলিম্পিককে ধন্যবাদ জানাই। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমাদের মতো অনেকেই বের হয়ে আসবে। শুনেছি এখানে যারা ভালো করবে তাদের ফেডারেশনে রেখে দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। এটা হলে সত্যিই অনেক ভালো হবে।’

সাঁতারে আরিফুল-সুম্মার দাপট
তাকে নিয়ে প্রত্যাশাটা বেশিই ছিল। প্রত্যাশামাফিকই প্রুলে ঝড় তুললেন তরুণ সাঁতারু আরিফুল ইসলাম। বাংলাদেশ যুব গেমসের সাঁতারে দাপ্রুটে ভূমিকায় দেখা গেল তাকে। রোববার মিরপ্রুর জাতীয় সুইমিং কমপ্রে¬ক্সে তিনটি ইভেন্টে অংশ নিয়ে তিনটিতেই স্বর্ণপ্রদক জিতেছেন ঢাকা বিভাগের এই সাঁতারু। বালিকা বিভাগে দাপ্রট দেখিয়েছেন সুম্মা খাতুন। দুটি ইভেন্টে অংশ নেওয়া খুলনা বিভাগের এই সাঁতারু দুটিতেই স্বর্ণ জিতেছেন।
বালক ৫০ মিটার ফ্রি স্টাইলে স্বর্ণ জেতেন আরিফুল ইসলাম। সময় নিয়েছেন ২৫.২২ সেকেন্ড। বোঞ্জ ও সিলভার জিতেছেন যথাক্রমে ঢাকা বিভাগের টিটু মিয়া ও চট্টগ্রাম বিভাগের নুরুল ইসলাম। বালিকা বিভাগের ৫০ মিটারের ফ্রি স্টাইলে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট উঠেছে সুম্মা খাতুনের মাথায়। সময় নিয়েছেন ৩০.৭৮ সেকেন্ড। বোঞ্জ ও সিলভার জিতেছেন যথাক্রমে খুলনা বিভোগের খাদিজা আক্তার বৃষ্টি ও ঢাকা বিভাগের সেতু আক্তার।
৫০ মিটার ব্যাকস্ট্রোক বালক বিভাগে স্বর্ণ জিতেছেন খুলনা বিভাগের আল আমিন। এই ইভেন্টে বালিকা বিভাগ থেকে স্বর্ণ জেতেন খুলনা বিভাগের রুপ্রা খাতুন। বোঞ্জ ও সিলভার জিতেছেন যথাক্রমে খুলনা বিভাগের রিয়া আক্তার মনি ও চট্টগ্রামের শ্রাবন্তী আক্তার।
৫০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোকে বরাবরের মতো শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রেখেছেন আরিফুল ইসলাম। প্র্রিয় এই ইভেন্টে স্বর্ণ জিতে নেওয়ার প্রথে ৩১.৩৭ সেকেন্ড সময় ব্যয় করেন তিনি। ব্রোঞ্জ জিতেছেন ঢাকার ইমন মিয়া ও সিলভার জিতেছেন চট্টগ্রামের নুরুল ইসলাম। এই ইভেন্টে বালিকা বিভাগ থেকে স্বর্ণ জিতেছেন খুলনা বিভাগের খাদিজা আক্তার বৃষ্টি। ব্রোঞ্জ ও সিলভার জিতেছেন যথাক্রমে খুলনার মুক্তি খাতুন ও রাজশাহীর রোকেয়া আক্তার।
১০০ মিটার ফ্রি স্টাইলেও আরিফুলের রাজত্ব। ৫৫.৭১ সেকেন্ডে স্বর্ণ জিতে নেন কমনওয়েলথ গেমসে দারুণ কিছু করার অপ্রেক্ষায় থাকা তরুণ এই সাঁতারু। ব্রোঞ্জ ও সিলভার জিতেছেন যথাক্রমে ঢাকার টিটু মিয়া ও চট্টগ্রামের নুরুল ইসলাম। এই ইভেন্টের বালিকা বিভাগ থেকে স্বর্ণ জিতেছেন ৫০ মিটার ফ্রি স্টাইলেও স্বর্ণ জেতা সুম্মা খাতুন। ব্রোঞ্জ জিতেছেন খুলনার মুক্তি খাতুন ও সিলভার গেছে চট্টগ্রামের ড থ্রু প্র্রুর ঝুলিতে।
তিনটি ইভেন্টে স্বর্ণ জিতে উচ্ছ্বসিত আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘তিনটি স্বর্ণ জিতে অবশ্যই ভালো লাগছে। তবে খুব বেশি খুশি হওয়ার কিছু নেই। কারণ এই আসরটিকে আমি কমনওয়েলথ গেমসের প্র্রস্তুতি হিসেবে নিয়েছি। ওই আসরে ভালো কিছু করে দেখাতে চাই। আর এই আসরে স্বর্ণ জয়ের ব্যাপ্রারে আমি আশাবাদী ছিলাম।’
তবে স্বল্পভাষী সুম্মা খাতুন খুব বেশি বললেন না। চোখেমুখে উচ্ছ্বাস লেগে থাকলেও মুখে শুধু এতটুকুই বললেন, ‘স্বর্ণ জিতে ভালো লাগছে। আরো ভালো হতে প্রারতো। আরো কম সময় নিয়ে শেষ করতে প্রারলে আরো খুশি হতে প্রারতাম। আরো ভালো করার চেষ্টা করবো আমি। আমার জন্য দোয়া করবেন।’
স্কোয়াশের সেমিফাইনাল সোমবার
বাংলাদেশ যুব গেমসের স্কোয়াশ প্রতিযোগিতার বালক ও বালিকা বিভাগের দুটি সেমিফাইনাল সোমবার অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে রোববার বিএএফ শাহীন স্কুল এন্ড কলেজ স্কোয়াশ কোর্টে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান শেখ বশির আহমেদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ স্কোয়াশ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গির হামিদ সোহেল। উদ্বোধনী দিন বালক গ্রুপে খুলনা বিভাগ ২-১ সেটে ঢাকা বিভাগকে, চট্টগ্রাম বিভাগ ২-০ সেটে রাজশাহী বিভাগকে, ময়মনসিংহ বিভাগ ২-০ সেটে বরিশাল বিভাগকে ও সিলেট বিভাগ ২-০ সেটে রংপুর বিভাগকে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠে। একই দিন বালিকা গ্রুপের খেলায় খুলনা বিভাগ ২-১ সেটে ঢাকাকে, চট্টগ্রাম ২-০ সেটে রাজশাহীকে, বরিশাল ২-০ সেটে ময়মনসিংহকে ও সিলেট ২-০ সেটে রংপুর বিভাগকে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নেয়।

বাস্কেটবল
বাংলাদেশ যুব গেমসের বাস্কেটবলে বালক বিভাগে চট্টগ্রাম বিভাগ, রাজশাহী বিভাগও ঢাকা বিভাগ জয় পেয়েছে। রোববার বিকেএসপিতে চট্টগ্রাম ৭৭-৩৫ পয়েন্টে ঢাকা বিভাগকে, রাজশাহী ৫৬-২৭ পয়েন্টে খুলনা বিভাগকে, ঢাকা ৬১-৪৭ পয়েন্টে রংপুরকে ও রাজশাহী ৪৫-৩৪ পয়েন্টে চট্টগ্রামকে পরাজিত করে। এদিকে বালিকা বিভাগে ঢাকা বিভাগ ৩৫-১৪ পয়েন্টে রাজশাহীকে হারায়।

দাবার দ্বিতীয় রাউন্ড শেষ
বাংলাদেশ যুব গেমসের দাবা ইভেন্টের দ্বিতীয় রাউন্ড শেষে রোববার বালক অনূর্ধ্ব-১৩ বিভাগে মোর্তুজা মুহতাদি ইসলাম, এম সাফওয়ান, বিশ্বজিৎ দাস ও নাজমুল হায়াত টানা দুই জয় নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন। বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের ক্রীড়া কক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডে মোর্তুজা ইশতিয়াক হাসান ইমনকে, বিশ্বজিৎ মেহেদি হাসানকে, সাফওয়ান মোঃ শাহ সুলতানকে ও নাজমুল মোঃ ইমাম হোসেনকে পরাজিত করেন। এদিকে বালিকা অনূর্ধ্ব-১৩ বিভাগে দুই জয় নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন নোশিন আঞ্জুম, সাদিয়া আফরিন সামিয়া, মাহজাবিন তিশা ও রূমাইসা হায়দার। দ্বিতীয় রাউন্ডে নোশিন ওয়াদিফা আহমেদকে, সাদিয়া আয়েশা খান মিমকে, রূমাইসা বুশরা হককে ও মাহজাবিন ফাতিহা আইনুন দিয়াকে হারিয়েছেন।
অপরিদকে তরুণ অনূর্ধ্ব-১৭ বিভাগে ফিদেমাস্টার মোহাম্মদ ফাহাদ রহমান, মোর্তুজা মাহাথির ইসলাম, নাইম হক ও মোঃ রাইসন দুই পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন। ফাহাদ শাহরিয়ার ইসলামকে, মাহাথির তাহসিন ইবনে জামালকে, নাইম আব্দুল আহাদকে ও রাইসন শাকিল খন্দকারকে পরাজিত করেন। এছাড়া তরুণী অনূর্ধ্ব-১৭ বিভাগে দুই জয় নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন কাজী জারিন তাসনিম, তানজিলা তুন নূর এবং ওমনিয়া বিনতে ইউসুফ লুবাবা। জারিন মার্জিয়া চৌধুরীকে, তানজিলা ফারিয়া সুমনাকে ও লিবাবা রিমি খানমকে হারান। সোমবার বিকালে সবকয়টি ইভেন্টেরই তৃতীয় রাউন্ডের খেলা শুরু হবে।

ঢাকা ও রাজশাহীর শ্রেষ্ঠত্বে শুরু হকি
মহিলা হকি একসময় সাড়া ফেললেও হকি ফেডারেশন কর্মকর্তা ও জেলা পর্যায়ের সংগঠকদের অভাবে মুখ থুবড়ে পড়ে আশা জাগানিয়া এই ডিসিপ্লিনটি। প্রথম বারের মতো আয়োজিত যুব গেমসে পুনরায় প্রান ফিরে পেল মহিলা হকি। যুব গেমসে অংশ নেয়া ৭ টি দলের খেলোয়াড়দের উচ্ছাস তাই প্রমান করে। বাহফে যুব গেমস উপলক্ষে তরুন তরুণী বিভাগে প্রতিটি ম্যাচের ম্যাচ সেরাকে একটি করে হকি স্টিক ও একটি করে বল উপহার দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাছাড়া চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ পুরো দলকে হকি স্টিক দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।
তরুণী গ্রুপে ও তরুণে রাজশাহীর শ্রেষ্ঠত্বের মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে হকি ডিসিপ্লিনের খেলা। তরুণী গ্রুপে ঢাকা বিভাগ বড় জয় পায় ময়মনসিংহের বিপক্ষে। রোববার মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে উদ্বোধনি দিনে ঢাকা বিভাগ ৬-০ গোলে হারায় ময়মনসিংহকে। বিজয়ী দলের হয়ে ফারদিয়া আক্তার রাত্রি ৬ মিনিটে দলের পক্ষে গোলের খাতা খুলেন। এরপর ৮ ও ১০ মিনিটে জোড়া গোল করেন অধিনায়ক সুমি আক্তার। ৪৪ ও ৪৮ মিনিটে ময়মিনসিংহ শিবিরে ফের জোড়া আঘাত হানেন ঢাকার সনিয়া আক্তার। ৫৮ মিনিটে ময়মনসিংহের জালে সর্বশেষ পেরেকটি ঠুকেন তারিক আক্তার খুশি। একটি মাত্র গোল করলেও পুরো খেলায় অবদান রাখায় ম্যাচ সেরা হন ঢাকা বিভাগের ফারদিয়া আক্তার রাত্রি। তরুণ গ্রুপের প্রথম খেলায় রাজশাহী ৮-০ গোলে বিধ্বস্ত করে খুলনা বিভাগকে।
প্রথম দিকে কয়েকটি ওপেন নেট মিস করা রাজশাহীর নাসির হোসেন ২৮, ২৯, ৪০ ও ৪৭ মিনিটে একাই করেন চার গোল। এছাড়া ৩৬ মিনিটে তাসিন আলী, ৪২ মিনিটে আশিকুর রহমান, ৫৬ মিনিটে অধিনায়ক সারোয়ার মোরশেদ শাওন ও ৫৮ মিনিটে জিসান উল্লাহ আবীর একটি করে গোল করেন। বিরোচিত এবং উপস্থিত মেধায় পুরো দলকে নিয়ে খেলার জন্য ম্যাচ সেরা হন রাজশাহীর সারোয়ার মোরশেদ শাওন।

কাবাডির প্রাথমিক রাউন্ড
যুব গেমসে চূড়ান্ত পর্বে কাবাডি ডিসিপ্লিনের প্রাথমিক রাউন্ডের খেলা পল্টনস্থ ঢাকা কাবাডি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। বালক গ্রুপে চট্টগ্রাম বিভাগ ১টি লোনাসহ ৩৩-২৯ পয়েন্টে রাজশাহীকে এবং বরিশাল ৩টি লোনাসহ ৫১-৩৩ পয়েন্টে ময়মনসিংহ বিভাগকে হারায়। বালিকা গ্রুপে চট্টগ্রাম ৩৪-২৭ পয়েন্টে বরিশালকে, খুলনা ২৯-৮ পয়েন্টে সিলেটকে এবং ময়মনসিংহ ৪১-২১ পয়েন্টে চট্টগ্রাম বিভাগকে হারায়।

ভলিবল
ঢাকা ভলিবল স্টেডিয়ামে যুব গেমসের চুড়ান্ত পর্বে বালক গ্রুপে বরিশাল বিভাগ ৩-১ সেটে ঢাকা বিভাগকে এবং সিলেট ৩-২ সেটে ময়মনসিংহকে হারায়। বালিকাদের গ্রুপে খুলনা ৩-০ সেটে ময়মনসিংহকে এবং চট্টগ্রাম বিভাগ ৩-০ সেটে হারায় সিলেট বিভাগকে হারায়।

ফুটবলের ফাইনালে সিলেট ও রাজশাহী
বাংলাদেশ যুব গেমসের ফুটবল ডিসিপ্লিনে তরুণ গ্রুপের ফাইনালে উঠেছে সিলেট বিভাগ ও রাজশাহী বিভাগ। রোববার কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে দুটি সেমিফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১১ টায় প্রথম সেমিতে সিলেট রাসেল আহমেদের হ্যাটট্রিকে ৫-১ গোলে ঢাকাকে হারিয়ে ফাইনালে উঠে। নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে ড্র থাকলে ম্যাচটি গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্তের পুরোটাই সময় যেন ছিলো সিলেটের। তারা এই সময়ে আরও চারটি গোল করে। ফলে শেষ পর্যন্ত সিলেট ৫-১ ব্যবধানে ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ে।
দ্বিতীয় সেমিফাইনালে রাজশাহী ২-১ গোলে রংপুরকে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা পায়। বুধবার ফাইনালে মুখোমুখী হবে সিলেট ও রাজশাহী। এর আগে মঙ্গলবার স্থান নিধৃারণী ম্যাচে মোকাবেলা করবে রংপুর ও ঢাকা ।
হ্যান্ডবল

মেয়েদের হ্যান্ডবলে ‘খ’ গ্রুপ থেকে সেমিফাইনালে উঠেছে ময়মনসিংহ ও রাজশাহী বিভাগ। শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী স্টেডিয়ামে ময়মনসিংহ ১৬-১৩ গোলে রংপুরকে ও ২০-১৮ গোলে খুলনা বিভাগকে হারিয়েছে। রংপুর-খুলনার ম্যাচে আগামীকাল চুড়ান্ত হবে গ্রুপের অন্য সেমিফাইনালিস্ট। আরেক ম্যাচে ঢাকা বিভাগ ২৪-০ গোলে বরিশাল বিভাগকে, রাজশাহী বিভাগ ২২-০ গোলে সিলেট বিভাগকে সহজে হারালেও রংপুর বিভাগের বিপক্ষে ঘাম ঝরিয়ে ১৩-১৬ গোলে জিততে হয়েছে ময়মনসিংহ বিভাগকে। ‘খ’ গ্রুপে আজ বরিশালের (০) কাছে হারলেও সমস্যা হবে না রাজশাহীর (৬)। ঢাকা-সিলেটের জয়ী দল হবে তাদের অনুগামী।
ছেলেদের পর্বে খুলনা বিভাগ ১৯-১০ গোলে সিলেট বিভাগকে, চট্টগ্রাম বিভাগ ৩০-৮ গোলে বরিশাল বিভাগকে, রাজশাহী বিভাগ ১৬-৮ গোলে ঢাকা বিভাগকে হারিয়েছে। ঢাকা বিভাগ ও ময়মনসিংহ বিভাগের ম্যাচটি ১৭-১৭ গোলে ড্র হয়েছে।
বিওএ উপমহাসচিব ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কোহিনুরের উপস্থিতিতে হ্যান্ডবলের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ যুব গেমসের মেডিকেল কমিটির চেয়ারম্যান ও সামরিক চিকিৎসা সার্ভিসেস’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল এসএম মোতাহার হোসেন এমসিপিএস, এফসিপি।

আগামীকাল সোমবার শেষ হচ্ছে আরচ্যারী ডিসিপ্লিনের প্রতিযোগিতা
বাংলাদেশ যুব গেমস-২০১৮ তে অন্তর্ভুক্ত আরচ্যারী ডিসিপ্লিনের খেলা শেষ হচ্ছে আগামীকাল সোমবার (১২মার্চ)। দুই দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতার শেষ দিনে রিকার্ভ তরুন-তরুনী একক, দলীয় ও মিক্স ইভেন্টের খেলা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতায় ৭টি বিভাগ হতে ২৫জন তরুন ও ২২জন তরুনী মোট ৪৭জন আর্চার অংশ গ্রহন করে। এদের মধ্য থেকে সর্বোচ্চ স্কোরের ভিক্তিতে ৪জন তরুন ও ৪জন তরুনী মোট ৮জন একক ইভেন্টের সেমিফাইনালে উঠে।
তরুনদের এককে যারা সেমিতে উঠেছেন তারা হলেন : ঢাকা বিভাগের মো: ইব্রাহিম শেখ ৬-০ সেটে খুলনা বিভাগের মো: আফজাল হোসেনকে, রাজশাহী বিভাগের তাওহিদ ৬-৫ সেটে ঢাকা বিভাগের সাকিব মোল্লাকে, চট্টগ্রাম বিভাগের তালহা জুবায়ের ৬-৪ সেটে একই বিভাগের নাইমুর রহমানকে এবং চট্টগ্রাম বিভাগের মিসাদ প্রধান ৬-২ সেটে নিজ বিভাগের প্রদ্বীপ্ত কে হারিয়ে সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।
এদিকে, তরুনীদের এককে সেমিফাইনালে উঠেছেন জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় (ইসলামী সলিডারিটি আরচ্যারী চ্যাম্পিনশিপ ও চ্রিলডেন আরচ্যারী চ্যাম্পিশিপ) একাধিক স্বর্ণ পদক জয়ী আর্চার রাজশাহী বিভাগের রাদিয়া আক্তার শাপলা। তিনি খুলনার আঁখি খাতুনকে ৬-০ সেটে হারিয়ে সেমিতে উঠে।
এছাড়া, ঢাকা বিভাগের অবনি ওসমান ৬-৫ সেটে রংপুর বিভাগের জেরিনকে, খুলনা বিভাগের ইতি খাতুন ৬-০ সেটে ময়মনসিংহের রুনাকে এবং আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় খেলা রাজশাহী বিভাগের মেয়ে রাবেয়া খাতুন ৬-০ সেটে রংপুর বিভাগের দিয়া সিদ্দীকিকে হারিয়ে সেমিতে উঠেন।