যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনোভেশান ফর পভার্টি একশান (আইপিএ)এবং জাতীয় জনসংখ্যা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট (নিপোর্ট) যৌথভাবে আজ বুধবার, ১লা নভেম্বর ২০১৭ তারিখে ঢাকার নিপোর্ট মিলনায়তনে Evidence in Health Policies and Programs in Developing Country Context  শীর্ষক একটি সেমিনারের আয়োজন করেছে।নিপোর্ট এর মহাপরিচালক রওনক জাহান এর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত এই সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব কাজী এ, কে, এম মহিউল ইসলাম। অন্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইনোভেশান ফর পভার্টি একশান (আইপিএ)দেশীয় প্রতিনিধি জনাব আশরাফুল হক, জনাব মোঃ রফিকুল ইসলাম, পরিচালক রিসার্চ, নিপোর্ট, আইপিএর গবেষণা সমন্বয়ক নুসরাত জাহান, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এর বনশ্রী মিত্র নিয়োগী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মাহমুদা খাতুনসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা এবং উন্নয়ন সহোযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধি বৃন্দ।  সেমিনারে মূল  প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইপিএ দেশীয় প্রতিনিধি জনাব আশরাফুল হক। মূল প্রবন্ধে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে আইপিএ’র গবেষনাকৃত বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ স্বাস্থ্য ও পরিবারপরিকল্পনা বিষয়ক গবেষণার ফলাফল উত্থাপন করেন। Empowering Girls in Rural Bangladesh নামক আইপিএর এক গবেষণায় দেখা যায় যে বাল্যবিবাহের ঝুঁকিতে থাকা ১৫-১৭ বছর বয়েসী মেয়েদের ১৮র আগে বিয়ে না করার শর্তভিত্তিক বৃত্তি প্রদান করে বাল্যবিবাহের হার এবং ফলস্রুতিতে বিশের আগে সন্তান জন্মদানের হার যথেষ্ঠ পরিমানে কমানো সম্ভব। আফ্রিকায় করা এক গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে যে পরিবারপরিকল্পনার ক্ষেত্রে স্বামীকে যদি অধিকসংক্ষক এবং ঘনঘন সন্তান জন্মদানের স্বাস্থঝুঁকি সম্পর্কে বোঝানো যায়, তাহলে পরিবারপরিকল্পনা পদ্ধতি ব্যব্যহারের হার বাড়ানো যেতে পারে। আফ্রিকায় করা আরো দুটি গবেষণায় দেখা গেছে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর কর্মী এবং এলাকার জনগনের মধ্যে আলোচনা ও সমঝোতার মাধ্যমে ক্লিনিকগুলোর জবাবদিহিতা এবং সেবার মানের ব্যপক উন্নতি করা সম্ভব।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতে কার্যকর নীতি গ্রহণে আইপিএ’র এসব বাস্তবভিত্তিক গবেষণা কাজে লাগাতে পারলে আমাদের স্বাস্থ্যখাতের আরো উন্নতি করা সম্ভব। ভবিষ্যতে আইপিএ’র গবেষনা কর্মের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর আশা ব্যক্ত করেন।