জকি ক্লাব গার্লস আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বড় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ‍ফুটবল দলকে ১০-১ গোলের ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের কিশোরীরা।

 

প্রথমার্ধে বাংলাদেশ ৬-০ গোলে এগিয়ে ছিল। বাংলাদেশের এমন জয়ে ২টি করে গোল করেছেন তহুরা খাতুন, শামসুন্নাহার ও আনাই মোগিনি। ১টি করে গোল করেছেন সাজেদা খাতুন, আনুচিং মগিনি, নিলুফা ইয়াসমিন ও শামসুন্নাহার।

 

শুক্রবার ম্যাচের ১৩-২৪ মিনিটে বাংলাদেশের মেয়েরা মালয়েশিয়ার জালে ৫ বার বল জড়ায়। ১৩ মিনিটে ফরোয়ার্ড সাজেদা খাতুন গোল করে এগিয়ে নেন দলকে। ১৮ ও ২০ মিনিটে তহুরা জোড়া গোল করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেন ৩-০ ব্যবধানে। ২২ মিনিটের মাথায় শামসুন্নাহার গোল করলে ব্যবধান হয়ে যায় ৪-০। আর ২৪ মিনিটে আনাই মোগিনি গোলের দেখা পেলে ৫-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় ছোটনের শিষ্যরা। ৩৮ মিনিটে শামসুন্নাহার (জুনিয়র) গোল করলে ৬-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

 

প্রথমার্ধে ৬ গোল খাওয়া মালয়েশিয়ার মেয়েরা ৫৩ মিনিটে একটি গোল শোধ দেয়। তবে তার কয়েক মিনিটের মাথায়ই ব্যবধান ৮-১ করে ফেলে বাংলাদেশের মেয়েরা। এরপর আনাই মোগিনি তার জোড়া গোল পূর্ণ করলে ব্যবধান হয় ৯-১। আর ৭০ মিনিটে নিলুফা ইয়াসমিনের গোলে ১০-১ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশের কিশোরীরা।

 

​আগামীকাল শনিবার বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ইরান। আর ১ এপ্রিল শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ লড়বে স্বাগতিক হংকংয়ের বিপক্ষে। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে। লিগ পদ্ধতিতে খেলা হবে। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা দলটি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করবে।

 

বাংলাদেশ দল যদি চ্যাম্পিয়ন হতে পারে তাহলে পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের পক্ষ থেকে হোম অ্যাপ্লায়েন্স দিয়ে উৎসাহিত করা হবে। ওয়ালটনের পক্ষ থেকে এমনটাই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

 

৩০ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত হংকং, বাংলাদেশ, ইরান ও মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে চারজাতি এই ফুটবল টুর্নামেন্ট।

 

উল্লেখ্য, ওয়ালটন গ্রুপ এর আগে ভারতে অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল। পাশাপাশি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ জাতীয় নারী ফুটবল দলের জাপান, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর ও চীন সফরেও তাদের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল।

 

বাংলাদেশ দল :

গোলরক্ষক : মাহমুদ আক্তার ও রূপনা চাকমা।

রক্ষণভাগ : আখি খাতুন, নিলুফার ইয়াসমিন নীলা, আনাই মগিনি, নাজমা, দীপা খাতুন, রুমি আক্তার, রুনা আক্তার।

মিডফিল্ড : মারিয়া মান্ডা, মনিকা চাকমা, লাবনি আক্তার, তহুরা খাতুন, মুন্নি আক্তার, শামসুন্নাহার, সোহাগী কিসকু।

ফরোয়ার্ড : ঋতুপর্ণা চাকমা, সাজেদা খাতুন, অনুচিং মোগিনি ও শামসুন্নাহার।

কোচ : গোলাম রাব্বানী ছোটন।

সহকারী কোচ : মাহবুবুর রহমান লিটু ও মাহমুদা আক্তার।