মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের বাজার সংলগ্ন সোনার হাট জামে মসজিদের জমি দখল করে দোকানঘর নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় আলহাজ্ব কামল হোসেনসহ আরো কয়েকজনের বিরুদ্ধে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মসজিদের নামে প্রথমে ৮শতক জমি দান করেন মাইফুল উদ্দিন ও পরে তার ওয়ারিশগণ ১৪ বছর আগে মসজিদ সংলগ্ন ঈদগাহ্ মাঠের জন্য আরো ৪ শতক জমি দান করেন।  কিন্তু ১৪ বছর পরে ওই এলাকার নছু শেখের ছেলে বজলুর রহমান (৬০), ফজলু হক (৫৫), বাবুল হোসেন (৫০) ও আলহাজ্ব কামাল হোসেন সেই ৪ শতক জমি দখল করে দোকান নির্মানের জন্য বিভিন্ন মহল থেকে চাপ সৃষ্টি ও মসজিদ কমিটির সদস্যদের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির পক্ষে বাবুল হোসেন কালীগঞ্জ থানায় গত ৮ অক্টোবর একটি অভিযোগ দায়ের করেছন।

এ ব্যাপারে ঔ এলাকার দেলওয়ার হোসেন, নুর আলম, মোজাম্মেল হকসহ আরো অনেকেইে জানান, আমার দীর্ঘ ১৪ বছর থেকে ওই ঈদগাহ মাঠে নামাজ আদায় করে আসছি। এখন হঠাৎ করেই কিছু কুচক্রী মহল জমি দখল করে দোকান নির্মান করছেন।

তারা সাংবাদিককে জানান, আপনাদের লেখনীর মাধ্যমে জেলার সকল উচ্চ পার্যারে কর্মকর্তারা দেখে বিষয়টি যেন আশু সমাধান করে দেন।

এ বিষয়ে অভিযোগ অশ্বিকার করে আলহাজ্ব কামাল গং বলনে এ জমি আমার, জমির কাগজ প্রত্র আমার নামে রয়েছে। এ জমি বিষয়ে লালমনিরহাট জর্জ কোর্টে মামলা বিচারাধিন রয়েছে।

তফশীল বিবরণীঃ মেীজা-জে,এল নং-৩৭, দাগ নং-৩৭২৯,৩৭৩০ দুই দাগে জমি ২১ শতকের মধ্যে ৪ শতক।
বিজ্ঞ মহল মনে করে অবিলম্বে মসজিদের জমি যদি আলহাজ্ব কামাল গং সত্যি দখল করে তাহলে তা ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের এগিয়ে আসা দরকার। তা না হলে যে কোন সময় অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটে যেতে পারে।