মতলব উত্তর (চাঁদপুর), ২৬ কার্তিক (১০ নভেম্বর) :

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় বর্তমানে আরো ২২০টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ কাজ শুরু করতে যাচ্ছে। নতুন করে নির্মাণাধীন এসব আশ্রয়কেন্দ্রের মধ্যে আজ চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলায় একটি আশ্রয়কেন্দ্রের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, বীরবিক্রম।

আশ্রয়কেন্দ্রটি নির্মাণ করা হচ্ছে মোহনপুর আলী আহমদ মিয়া বহুমুখী মহাবিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠে। বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ের সময় মেঘনা নদীর চর এলাকার মানুষদের আশ্রয়ের উদ্দেশ্যে এটি নির্মাণ করা হচ্ছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব গোলাম মোস্তফা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ রিয়াজ আহমেদ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সভায় উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী বলেন, এ বছরের উপকূলীয় ঘূর্ণিঝড় মোরায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে হলেও সরকারের ব্যাপক পূর্বপ্রস্তুতির কারণে জানমালের তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। প্রায় সাড়ে ছয় লাখ লোককে একদিনের মধ্যে আশ্রয়কেন্দ্রে আনতে হয়েছিল। মায়া চৌধুরী বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে ৩২টি জেলায় সংগঠিত বন্যায় উত্তরাঞ্চলে আশ্রয়কেন্দ্রের চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল মনে হলেও কেউই আশ্রয়হীনভাবে খোলা আকাশের নিচে ছিলনা। তিনি আরো বলেন, সরকার প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের মৃত্যুর হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার লক্ষ্যে কাজ করছে। উত্তরাঞ্চল ও হাওর এলাকায় পর্যাপ্ত আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। নতুন আশ্রয়কেন্দ্র, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সরকারি-বেসরকারি অবকাঠামো মিলে নির্ধারিত সময়ে আশ্রয়কেন্দ্রের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।