মেহেদী হাসান উজ্জল ফুলবাড়ী দিনাজপুর প্রতিনিধি
দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিকরা স্কেল ভিত্তিক প্যাকেজে মাসিক বেতন ভাতা প্রাপ্তির দাবিতে মানব বন্ধন করেছেন।

গতকাল বুধবার ২৭শে সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১১ টায় বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানীতে কর্মরত খনি শ্রমিকরা বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজি নং (২৬৪৭) এর উদ্দোগে । স্কেল ভিত্তিক প্যাকেজে মাসিক বেতন ভাতার দাবিতে খনির প্রধান ফটকের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানব বন্ধন করেন।
মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ রবিউল ইসলাম।
তিনি তার বক্তব্যে বলেন গত আগস্ট মাসের মাসিক বেতন সেপ্টেম্বর মাসের ৫ তারিখে প্রদান করার দিন ছিল। শ্রমিকেরা মাসিক বেতন না পেয়ে মানবতর জীবন যাপন করছে।
শ্রমিকেরা আজকে অর্থের অভাবে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে পারছে না। ভোগ্য পণ্যের দোকানে তাদের বকেয়ার দায়ে যত্রতত্র অপমানিত হতে হচ্ছে।
বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী শ্রমিকদের জন্য ২০১৭ ইং সালের ১১ আগস্ট হতে নতুন চুক্তি শুরু হয়। উক্ত চুক্তিতে শ্রমিকদের দাবি ছিল চাকুরী স্থায়ী করণের। কিন্তু সেই দাবি পূরণ না করে জ্বালানী মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শ্রমিকদের জন্য একটি আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেন।
আর্থিক প্যাকেজটি সাদরে শ্রমিকেরা গ্রহণ করে নতুন উদ্যোমে কাজে মনোনিবেশ করেন।
এক্ষেত্রে মাস শেষে শ্রমিকদের মাসিক বেতন প্রদানে এক্স এম সি/ সি এম সি চাইনিজ কোম্পানী সাপ্তাহিক ছুটির দিনের কর্মরত শ্রমিকদের ঐ ছুটির দিনের বেতন দিতে গড়িমসি করছে।
তিনি আরো বলেন সাপ্তাহিক ছুুটির দিনে কর্মরত শ্রমিকদের বেতনের অর্থ মাসিক মোট বেতন +মাসের মোট দিনের সংখ্যা +ছুটির দিনের সংখ্যা অনুযায়ী ঐ দিনের মজুরি প্রাপ্ত হবেন মর্মে পেট্রোবাংলা ও চাইনিজ কোম্পানী চুুক্তিবদ্ধ ছিল।
সেই চুক্তি অনুযায়ী ছুটির দিনে কর্মরত শ্রমিকদের মজুরী প্রদান না করলে শ্রমিকগণ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। চুক্তিপত্র অনুযায়ী সমাধান করার জন্য পেট্রোবাংলার সহযোগিতা কামনা করছেন খনিতে কর্মরত শ্রমিকেরা।
আগামী ২৮শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে এমপিএম এন্ড পি চুক্তিতে খনি কর্তৃপক্ষ ঐ দাবি মেনে না নিলে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবু সুফিয়ান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ লিটন, সহ-সভাপতি মোঃ মোরসালিন, অর্থ সম্পাদক মোঃ হযরত আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ নূর ইসলাম। মানব বন্ধনে খনির প্রায় ৩শতাধিক শ্রমিক কর্মচারী অংশ নেন।