আজ ১৫.১১.২০১৭ সকাল ১০ টায় বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক সমিতির এক ‘প্রতিনিধি সম্মেলন- ২০১৭’ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজসমূহের পরিদর্শক ড. মো. মনিরুজ্জামান শাহীন।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি নেকবর হোসাইন। সাধারণ সম্পাদক মো. ছাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রতিনিধি সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা এটিএম মমতাজুল করিম, ময়মনসিংহ বিভাগের সভাপতি মোহিত লাল সানা, সুকোমল সেন, বিলাশগুন চৌধুরী, নুরুল আবছার সিকদার, মাজহারুল হক পলাশ, হুমায়ুন কবির, সৈয়দ কামরুল হাসান লিপু, মো. সোহরাব হোসেন, প্রধান সমন্বয়কারী পবিত্র কুমার মন্ডল, আনোয়ারুল ইসলাম, দুলাল চন্দ্র কর্মকর্তার, পারভেজ হোসেন, আমিনুর রহমান, লিটন কান্তি মন্ডল, শ্রীপতি রায়, পরিমল মন্ডল, সাইফুল ইসলাম, টিপু সুলতান, মো. শামীম, নায়েব আলী, মো. মাহবুব আলম, সোহেল রানা-সহ বিভিন্ন জেলার প্রতিনিধিবৃন্দ।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজসমূহের পরিদর্শক ড. মো. মনিরুজ্জামান শাহীন বলেন, এমপিও অচিরেই বাস্তবায়ন হবে। কারণ আমাদের প্রচেষ্টায় চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের টেবিলে আছে। তাছাড়া শিক্ষা বিভাগীয় প্রধান ৩ বছর অন্তর অন্তর সিনিয়র ভিত্তিতে পরিবর্তন হবে এই মর্মে স্ব-স্ব কলেজকে পত্র দেওয়া হবে।

বক্তারা বলেন, দীর্ঘ ২৫ বছর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বেসরকারি কলেজে অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগকৃত শিক্ষকরা বিনা বেতনে চাকরি করছেন। কিন্তু এই ২৫ বছরে ৫ হাজার শিক্ষক প্রায় ৫ লক্ষ ছাত্র-ছাত্রীর শিক্ষাদান করেছেন। উপজেলা পর্যায়ের একটি করে কলেজ জাতীয়করণের ফলে ঐ সদ্য জাতীয়করণকৃত বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা কাঠামোভুক্ত হচ্ছেন একই প্রতিষ্ঠানের চাকুরি করে আমরা বিনা বেতনে চাকুরী করছি। বিষয়টি খুবই অমানবিক। তাই বর্তমান সরকারের কাছে আমাদের বিনীত আবেদন উচ্চ শিক্ষার মান উন্নয়নে শিক্ষকদের এমপিওবিহীন রেখে কখনো উচ্চ শিক্ষার মান উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষে অনতিবিলম্বে অনার্স-মাস্টার্স কোর্সের শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করা প্রয়োজন।

সভাপতির বক্তব্যে নেকবর হোসাইন বলেন, অনতিবিলম্বে অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের জনবল কাঠামোর অন্তর্ভূক্ত করে এমপিও’র ব্যবস্থা করা হোক।