বেগমগঞ্জে ডাবল মার্ডারের, আসামীরা ২মাসেও গ্রেফতার হয়নি,, গ্রেফতার দাবিতে মানববন্ধন

নোয়খালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুরে চাঞ্চল্যকর ডাবল মার্ডারের আসামী সন্ত্রাসী সুমন এবং তার সহযোগী খুনীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন করেছে একলাশপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও এলাকাবাসী। একলাশপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে রোববার দুপুর ১২টায় নোয়াখালী প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, বেগমগঞ্জ উপজেলা কৃষকলীগের দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা যুবলীগ নেতা আবদুল ওহাব, শরীফপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা মন্নান, শরীফপুর ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মিজানুর রহমান মিশন, নিহত মোহাম্মদ আলীর বাবা সোলায়মান, ভাই ও হত্যা মামলার বাদী শরাফত আলী প্রমুখ।

বক্তারা জানান, স্থানীয় সন্ত্রাসী খালাসি সুমন ও তার বাহিনীর অপ্রতিরোধ্য অত্যাচারের শিকার হয়ে বেগমগঞ্জ উপজেলার অসহায় বিভিন্ন পরিবার সহ অসংখ্য ব্যবসায়ী নিরুপায় হয়ে প্রাণভয়ে তাদের বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফেলে রেখে জীবন রক্ষার্থে অন্যত্র চলে যায়। শাসক দলের প্রভাব খাটিয়ে সন্ত্রাসী সুমন বীরদর্পে অপকর্ম চালিয়ে বিগত কয়েক বছরে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। এলাকায় অপকর্ম করার পর সাময়িকভাবে আত্মগোপনের থাকলেও কিছুদিন পরে জোর তদবির শেষে ঘটনাগুলো যখন শিথিল হয় তখন আবার তিনি তার বাহিনী নিয়ে বেগমগঞ্জে রাক্ষসীরূপ ধারণ করে ঝাঁপিয়ে পড়েন নিরীহ মানুষের উপর। গত কিছুদিন আগে ডাবল মার্ডার করে আতœগোপনে থাকার এখন প্রশাসনের সামনে দিয়ে দিব্যি চলাফেরা করছে। মানববন্ধনে অংশ নেওয়া শত শত মানুষের একটাই দাবী সন্ত্রাস চাঁদাবাজ ও সীমাহীন অপকর্মের নায়ক একাধিক হত্যা মামলার আসামী খালাসী সুমনকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে ফাঁসী কার্যকর করতে হবে।

উল্লেখ্য, গত ১০ মার্চ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় মোহাম্মদ আলী ও মোহাম্মদ রবিন নামে দু’জনকে কুপিয়ে ও গুলি হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। উপজেলার এখলাসপুরের ভিআইপি রোডে এ ঘটনা ঘটে। নিহত দুজন সম্পর্কে চাচা-ভাতিজা ছিলো। এ ঘটনায় সুমনকে আসামী করে মামলা করা হয়েছে। এছাড়াও সুমনের বিরুদ্ধে ১০/১২ টি মামলা রয়েছে বলে জানান মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারী এলাকাবাসীরা।