এন.আই.মিলন, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি- দিনাজপুরের বীরগঞ্জের স্কুল ছাত্রীকে ১ লম্পট ধর্ষনের চেষ্টা করে, জামাত নেতা ইউপি চেয়ারম্যন কর্তৃক আপোষের সভা বসালে তা ভুন্ডুল করে এলাকাবাসী।
উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের কলেজ মোড় এলাকার ঘশিবাড়ী গ্রামের মৃত জালাল শেখের পুত্র ফয়েজ উদ্দিনের বাড়ীতে উপস্থিত হলে এলাকাবাসীর সামনে ফয়েজ উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, তার কন্যা ঝাড়বাড়ী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী। সে গত ২ অক্টোবর বিকালে প্রতিবেশী প্রদীপের বাড়ী সংলগ্ন তালগাছের নিচে সহপাঠি আনোয়ার, ফাইমা, রাজু, সামিম সহ খেলতে গেলে প্রতিবেশী হরি চন্দ্রের লম্পট পুত্র কৃষœ চন্দ্র রায় (৪৫) তাকে তাল পেড়ে দেওয়ার কথা বলে পাশে^বর্তী মান্নান মেম্বারের ইক্ষু ক্ষেতে জোর পূর্বক ধরে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা করে। এসময় মেয়েটির চিৎকারে খেলার সাথীরা দৌড়ে এসে বাধা দিলে লম্পট কৃষ্ণ পালিয়ে যায়। সরজমিনে এলাকাবাসী জানায়, লম্পট কৃষ্ণ ইতিপূর্বেও এরুপ ২/১টি ঘটনা ঘটালেও দালালদের টাকা খাইয়ে নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করে।
এ ঘটনায় গরিব ফয়েজ উদ্দিনকে ২/১ জন ভুল বুঝিয়ে বিচারের নামে আইনগত ব্যবস্থা হতে বিরত থাকার কথা বলে কালক্ষেপন করে ১১ অক্টোবর সন্ধ্যায় হাজার হাজার এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে ইউপি চেয়ারম্যান জামাত নেতা কে.এম.কুতুব উদ্দিন প্রহসনের বিচার বসায়। প্রহসনের বিচার না মেনে এলাকাবাসীরা ঘটনাস্থল হতে চলে যায়। বর্তমানে এ ঘটনাটি এলাকায় চাপা ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।