এন.আই.মিলন, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি- দিনাজপুরের বীরগঞ্জের ১ মেধাবী শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি সুযোগ পেলেও অনিশ্চিতায় ভুগছেন ভর্তি নিয়ে।
দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের অর্জুনাহার গ্রামের হোসেন ফকিরের কন্যা গোলাপগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের ছাত্রী ঝর্না আক্তার খ ইউনিটে মেধা তালিকায় ১০৩৫ তম স্থান নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। সে ৩ ভাই বোনের মধ্যে সবার ছোট। তার মাতা একজন গৃহিনী।
ঝর্না আক্তার জানায়, তার এই সফলোতার জন্য পরিবারের লোকজন ছাড়াও শিক্ষক ও সহপাঠীদের কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে অনেক সহযোগীতা পেয়েছেন। তাদের উৎসাহ, সহযোগীতা আর অনুপ্রেরণাতেই আজ এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। তাই তাদের প্রতি কৃতজ্ঞা প্রকাশ করে সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন রুনা। তার ভবিষ্যৎ স্বপ্ন বা ইচ্ছের কথা জানতে চাইলে সে জানায়, আমি বিসিএস ক্যাডার হয়ে দেশের সেবা করতে চাই।
এ ব্যপারে অর্জুনাহার গ্রামে অবস্থিত আরাজি বোচাপুকুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ নুরুল ইসলাম জানায়, ঝর্না আক্তার ২০১৫ সালে এস.এস.সি-তে ৪.০৬ ও পারিবারিক সমস্যা থাকার পরেও গোলাপগঞ্জ ডিগ্রী কলেজে হতে ২০১৭ সালে এইচ.এস.সি পরিক্ষায় অংশগ্রহন করে ৪.৯২ নম্বর পেলেও কঠিন পরিশ্রম, মেধা, আর ইচ্ছা শক্তির জোরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ অর্জন করেছে। তার বাবার ৩/৪ বিঘা জমি থাকলেও বড়ো বোনের বিয়ের সময় কিছু জমি নষ্ট করলেও পিতার ভুলের কারনে বর্তমানে জমা জমিহীন। তার মা অল্প কিছু জমি আধী নিয়ে ভাইটির সহযোগিতায় আবাদ করে সংসার চালায়। তাকে কেউ সহায়তা করতে চাইলে শিক্ষক মোঃ নুরুল ইসলামের ০১৭১০২১৫৪৭৪ মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন।