হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)

চট্টগ্রাম ফটিকছড়ি মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের আধ্যাত্মিক মনীষী শায়খুল ইসলাম, ইমামে আহলে সুন্নত, হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.) কেবলা কাবার ৬ষ্ঠ বার্ষিক ওরশ শরীফে লাখো ভক্ত জনতার অংশগ্রহণে দেশ ও বিশ্ববাসীর শান্তি-সমৃদ্ধি কামনায় আখেরি মুনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে। ১৮ আগস্ট ৩ ভাদ্র শুক্রবার ওরশ শরীফের সমাপনী দিবসে লাখো লাখো মুসল্লির উপস্থিতে পবিত্র জুমানামাজে ইমামতি ও আখেরী মুনাজাত পরিচালনা করেন মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন, রাহবারে শরিয়ত ও ত্বরীক্বত হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)। তিনি বলেন, আউলিয়ায়ে কেরাম প্রদর্শিত শান্তির পরিবর্তে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিশ্বকে ক্রমেই অনিরাপদ করে তুলছে। জগতে শান্তি ও মানবতার রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করাই আউলিয়ায়ে কেরামের মিশন। শান্তির পথ ছেড়ে হানাহানি-সংঘাতের পথ বেছে নেয়ায় বিশ্ববাসীর শান্তির প্রত্যাশা আজ ভূলুণ্ঠিত। সংঘাতপ্রবণ এই বিশ্বে শান্তি জনস্বস্তি ও জননিরাপত্তা ফিরিয়ে আনতে আউলিয়ায়ে কেরাম ও মাইজভাণ্ডারী মহাত্মা সাধকদের চর্চিত প্রেমবাদকে সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি বলেন, আওলাদে রাসূল (দ.), হুজুর গাউছুল ওয়ারা হযরত শাহ্সূফী আল্লামা সৈয়দ মইন্দ্দুীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.) একটি মানবিক সম্প্রীতিময় নিরাপদ বিশ্ব প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখেছিলেন। মাইজভাণ্ডারী শান্তি ও মানবতার দর্শনকে বৈশ্বিক স্তরে পৌঁছে দিয়ে তিনি যুগের দাবি পূরণ করেছেন। তাঁর মিশন ও ভিশনকে সর্বত্র প্রসারিত করে একটি সমৃদ্ধ নিরাপদ মানবিক বিশ্ব গড়ায় এগিয়ে আসতে ভক্ত জনতার প্রতি তাগিদ দেন হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)। ওরশ শরিফে বিশেষ অতিথি ছিলেন, শাহজাদায়ে গাউছুল আ’যম হযরত সৈয়দ মাশুক-এ-মইনুদ্দীন মাইজভাণ্ডারী, শাহজাদায়ে গাউছুল আ’যম হযরত সৈয়দ হাসনাইন-এ-মইনুদ্দীন মাইজভাণ্ডারী। ওরশ শরিফকে ঘিরে মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের বিশাল এলাকায় বসে লোকজ পণ্যের মেলা। নানা স্বাদের খাদ্যদ্রব্যের দোকানে বেচাবিক্রিও চলে প্রচুর। ফটিকছড়ি থানা ও উপজেলা প্রশাসন এলাকায় শান্তি শৃংখলা রক্ষায় বিশেষ পদক্ষেপ নেয়। এজন্য আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়ার পক্ষ হতে প্রশাসনের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়। হুজুর কেবলার জীবন দর্শনের ওপর আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, আন্জুমান কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক খলিফা শাহ মো: আলমগীর খান মাইজভাণ্ডারী, হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের মহাসচিব এডভোকেট কাজী মহসীন চৌধুরী, হযরত মাওলানা মুফতী বাকিল্লাহ আল্-আযাহারী, খলিফা হযরত মাওলানা রুহুল আমিন ভূঁইয়া চাঁদপুরী, আমতল ছিদ্দিক্বীয় মইনীয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার সুপার মাওলানা বাকের আনসারী, মাওলানা আব্দুছ সাত্তার সিদ্দিকী, আন্জুমান কেন্দ্রীয় সহসভাপতি এডভোকেট ওয়াজ উদ্দিন মিয়া, সিঙ্গাপুরের খলিফা মো: মোতাহের হোসেন খান, ইরাকের খলিফা মো: আব্দুল রহিম, ভারতের খলিফা মো: মজিবুর রহমান, আন্জুমান কেন্দ্রীয় সহসভাপতি খলিফা আলহাজ্ব কবির চৌধুরী, আন্জুমান চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি খলিফা বোরহান উদ্দিন, দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী মো: শহিদুল্লাহ প্রমুখসহ আন্জুমান ও মইনীয়া যুব ফোরামের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।