আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপিতে কোনো গণতন্ত্র নেই। হঠাৎ করে এক নেতা তাঁর নিজের ছেলেকে প্রার্থী ঘোষণা করলেন; এতেই বোঝা যায় কোন দলে গণতন্ত্র আছে, কোন দলে নেই।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে গুলিস্তানে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আজকে দেখলাম বাবা (আবদুল আউয়াল মিন্টু) তাঁর ছেলেকে (তাবিথ আউয়াল) বিএনপির উত্তরের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করেছেন। এটা আওয়ামী লীগ কখনো করে না। বাবা বিএনপির নেতা, তিনি তাঁর ছেলেকে মনোনয়ন দিয়েছেন। যে ছেলের নাম প্যারাডাইজ পেপারে এসেছে।’ তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে হলে মনোনয়ন বোর্ড থেকে নাম আসবে। দলের সাধারণ সম্পাদক হঠাৎ করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করতে পারবেন না। এটা আওয়ামী লীগে হবে না।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মনোনয়ন প্রতিযোগিতায় অসুস্থ কোন্দলে জড়ালে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দলে যদি কোনো মেজর সমস্যা হয়, তাহলে আমরা যদি ব্যর্থ হই—আমাদের নেত্রীর হস্তক্ষেপে সমস্যার সমাধান হয়। আমাদের পার্টিতে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটতে আমরা দিচ্ছি না। আমাদের দলের একজন অন্যায় করে শাস্তি পাবে না, এটা হয় না।’

মেয়র প্রার্থী মনোনয়নের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, দলে মাঝেমধ্যে কিছু সমস্যা হয়। নির্বাচন সামনে রেখে সুস্থ প্রতিযোগিতা থাকবে। কোনো প্রার্থী আগ্রহ প্রকাশ করতেই পারেন। কোনো জায়গায় ১০-১৫ জন প্রার্থী আছে, থাকতে পারে। কিন্তু মনোনয়ন দেবেন দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা, সেটা মনোনয়ন বোর্ডের মাধ্যমে। তিনি বলেন, মনোনয়ন দেওয়ার পর আওয়ামী লীগে বিদ্রোহের পরিমাণটা একেবারে কম। প্রার্থী মনোনয়ন শেষ হলে বলা যাবে কলহ-কোন্দল কী পরিমাণ। তবে এটা দলে জন্য কোনো বাধা হয়ে দাঁড়াবে না।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মামলায় সরকারের কোনো হাত নেই জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতারা বলছেন খালেদা জিয়া নির্দোষ প্রমাণিত হবেন। খুব ভালো কথা। আদালতের বিচারে তিনি যদি নির্দোষ প্রমাণিত হন, অবশ্যই খালাস পাবেন। এখানে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।