সরকারির চাকরিতে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতির সংস্কার চেয়ে বার বার আল্টিমেটার দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে তিনি বলেন, ‘সব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কিছু সময় লাগে। এরপরও তারা থ্রেট দেয়! এটা সম্পূর্ণ বাড়াবাড়ি।’

সকালে সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে কোটা সংস্কার আন্দোলন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, কোনো কোনো মহল কোটার বিষয় নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এটা দ্রুত করা যায় কি-না সে বিষয়ে একটু ভাবেন। কারণ, এর সমাধানের বিষয়টি তো আপনিই দিয়েছেন। এ সময় বিরক্তি প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি তো একটা কথা বলেছি, কমিটি কাজ করছে। কেউ বসে নাই, এটা একটা লম্বা প্রক্রিয়া। আমি একটা কথা দিয়েছি, সংশ্লিষ্ট লোকজন তা নিয়ে কাজ করছে। আন্দোলনকারীরা বলে, ক্লাস করবে না। না করলে না করবে, এতে তাদেরই ক্ষতি। আমি তো বলেছি, হবে।’

কোটা সংক্রান্ত এ আলোচনায় আরও কথা বলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। কোটা নিয়ে অবিলম্বে প্রজ্ঞাপন জারি হবে বলে সভা শেষে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

উল্লেখ্য, পূর্বঘোষণা অনুযায়ী সোমবার সকাল থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ করে প্রজ্ঞাপনের দাবিতে বিক্ষোভ করছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। দুপুরের দিক থেকে শাহবাগ মোড়েও অবরোধ করেছেন তারা।