দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, বলেছেন, অগ্নিকান্ডের ক্ষয়ক্ষতি ও ঝুঁকি এড়াতে প্রত্যেক মার্কেট ও শপিংমলকে নিয়মিত ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ড মহড়া করতে হবে। এ কাজে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ডিপার্টমেন্ট প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করবে। অসচেতনতায় যাতে মানুষের জীবন বিপন্ন না হয় তার জন্য সবাইকে আন্তরিক হতে হবে।
তিনি আজ রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি কমপ্লেক্সে ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ড সচেতনতা মহড়া শেষে বক্তব্যকালে এ কথা বলেন।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ কামাল, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহমদ খান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের পরিচালক খালিদ মাহমুদ ও বসুন্ধরা মার্কেট কর্তৃপক্ষ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস ২০১৭ উপলক্ষে রাজধানীর বিভিন্ন শপিংমল ও মার্কেটে ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ড মহড়ার অংশ হিসেবে আজ বসুন্ধরা সিটি কমপ্লেক্সে এ মহড়ার আয়োজন করা হয়। ইতোমধ্যে নিউমার্কেট ও যমুনা ফিউচার পার্ক শপিং কমপ্লেক্সে এ মহড়ার আয়োজন করা হয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, পূর্ব-প্রস্তুতি ও মহড়া ব্যতীত দুর্যোগকালে সাড়াদান সঠিক হয় না। মহড়া করলে এক ধরনের অভিজ্ঞতা হয় ও ভুল-ত্রুটি শুধরে নেয়া যায়।
তিনি বলেন, রাজধানীতে বড় বড় শপিংমল গড়ে উঠেছে যার অনেকে অগ্নিকান্ড মোকাবিলার জন্য তেমন প্রস্তুতি রাখেন না। আবার অনেক শপিংমলের কাছে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার গাড়ি যাওয়ার মত পর্যাপ্ত জায়গা রাখেন না। এমনকি আগুন নিভানোর প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি রাখেন না। এতে দিন দিন অগ্নিকান্ডের ঝুঁকি বাড়ছে।
মন্ত্রী বলেন, অগ্নিকান্ড সাধারণত চুলা, বিদ্যুতের সর্ট সার্কিট বা ছেঁড়া তার থেকে হয়ে থাকে। তাই নিয়মিত বিদ্যুতের তার ও গ্যাসের লাইন পরীক্ষা করতে হবে। সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে জানমালের ঝুঁকি পরিহারের উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। পর্যায়ক্রমে সকল মার্কেট ও শপিংমলে এ ধরনের মহড়া আয়োজনের জন্য তিনি ফায়ার সার্ভিস ডিপার্টমেন্টের প্রতি অনুরোধ জানান।