মোজাম্মেল হোসেন কামাল, নোয়াখালী প্রতিনিধি ঃ
নোয়াখালীর আজিজুল হক মিঠু’র ২০ বছর গাছ-গাছালী ও লতা-পাতার গবেষণা ও প্রয়োগিক পরীক্ষা নিরীক্ষালব্দ বিস্ময়কর এক নব উদ্ভাবন। যা হাঁস-মুরগী, কবুতর, কোয়েল পাখি জাতীয় প্রাণীর মারাত্মক সংক্রামক রোগ রাণীক্ষেত প্রতিরোধক ও প্রতিষেধক ঔষধ ক্ষমতা সম্পন্ন বলে জেলার প্রাণীজ খামারিদের কাছ থেকে জানা যায়।
একাধিক খামারীর মতে মিঠুর নব উদ্ভাবিত ঔষধিটি খুবই উপকারী। খামারী ফিরোজ জানান, মুরগী চাষে কয়েক ব্যাচে রাণীক্ষেত রোগাক্রমনে তার লোকসান গুনতে হয়েছে। মিঠু’র নব উদ্ভাবিত প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরী ঔষধ ব্যবহার করে তিনি উপকার ভোগী হয়েছেন। খামারী আবদুজ্জাহের টিটু বলেন, হাঁস-মুরগীর রাণীক্ষেত একটি মারাত্মক সংক্রামক ব্যাধি ইতিপূর্বে মিঠু’র তৈরি ঔষধ ব্যবহার করে ব্যকসিন ছাড়াই নির্ভরতা পাচ্ছি।
এ ব্যাপারে মিঠু তার উদ্ভাবণী ঔষধকে ব্যাপকভাবে সম্প্রসারণ করার জন্য রাষ্ট্রের সহযোগিতা কামনা করেন।