শাকিল মুরাদ, শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরের নকলা উপজেলায় পৃথক ঘটনায় দুই জনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ১১সেপ্টেম্বর সোমবার উদ্ধার হওয়া লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য জেলা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, রবিবার রাতে কুর্শা বাদাগৈড় ঢাকা-শেরপুর মহাসড়কে বাসের ধাক্কায় রকিন (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়। নিহত রবিন উপজেলার টালকী ইউনিয়নের নয়াবাড়ী এলাকার আবু সাঈদের ছেলে।

নিহতের বাবা আবু সাঈদ ও ইউপি চেয়ারম্যান বদ্দিউজ্জামান জানায়, রকিন দীর্ঘদিন যাবৎ মানসিক রোগে ভোগতেছিলেন। ঐদিন বিকেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে নকলা আসে। তখন ঢাকা থেকে শেরপুরগামী অজ্ঞাত এক বাস তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

অপরদিকে, ১১সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে উপজেলার নারায়নখোলা পূর্বপাড়া এলাকার বেড়শিমুল গাছের পার্শ্বে একটি পুকুর থেকে রুমেছা বেগম (৮০) নামে এক বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

রুমেছা বেগমের বড় মেয়ে খালেদা বেগম জানান, সকালে ফজর নামাজ পড়ে হাটতে হাটতে কোটেরচর এলাকায় নিহতের বোনের বাড়ি বেড়াতে গিয়ে বেড়শীমুল গাছের পার্শ্বে পুকুর পাড়ে পা-পিছলে পরে মারা গেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছে।

চন্দ্রকোনা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস আই জহুর আলী জানান, সকালে খবর পেয়ে আমরা নিহত রুমেছার লাশ উদ্বার করে নকলা থানায় প্রেরণ করি।

নকলা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহমুদুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে দুটি পৃথক মামলা দায়েয়ের প্রস্তুতি চলছে।