ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ে আওয়ামী লীগ জনমত যাচাই করছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সিডিউল ঘোষণার আগে অফিশিয়ালি প্রার্থীর নাম বলতে পারি না। সিডিউল ঘোষণা হোক তার পরে আমরা প্রার্থীর নাম বলবো।’

মঙ্গলবার বিকালে ধানমন্ডিস্থ রাসেল স্কয়ারে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ উপ কমিটির উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের নেত্রী (শেখ হাসিনা) হয়তোবা কাউকে কাজ করতে বলতে পারেন। নেত্রী এটা অবশ্যই বলতে পারেন। বাজারটা পরীক্ষা করে দেখা, তাকে ঘিরে মানুষের আশা আকাঙ্কাটা কেমন। তাকে ঘিরে প্রত্যাশাটা কেমন বা নমিনেশনকে ঘিরে তিনি নিজেকে কতটুকু একমোডেশন করতে পারছে।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের শূন্যতা পূরণে কতটা সক্ষমতা আছে, জনগণের মাঝে কতটা গ্রহণযোগ্য সেটাও আমাদের দেখতে হবে। সে রকম একজনকে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন কিন্তু নমিনেশনটা হবে আনুষ্ঠানিকভাবে।’

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার আদালতে হাজিরা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়া আদালতে যাওয়া মানেই তার দলের লোকেরা পুলিশকে উসকানী দেয়। আদালত থেকে ফেরার সময় তার নেতাকর্মীরা রাস্তা বন্ধ করে বসে থাকেন। আর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে পুলিশকে উসকানি দেন।

কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও ডা. দীপু মনি, দফতর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কার্যনিবাহী সদস্য রিয়াজুর কবির কাওছার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।