ভয়াবহ সংঘাতের মুখে দাঁড়িয়ে উত্তর কোরিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দুই রাষ্ট্রের মধ্যে যুদ্ধ বেধে যাওয়ার ‘সম্ভাবনা বাস্তবায়িত’ হয়েছে।
এমনই রিপোর্ট দিয়েছে রয়্যাল ইউনাইটেড সার্ভিসেস ইন্সটিটিউট (রুসি)। প্রতিরক্ষা ও যুদ্ধ সংক্রান্ত বিভিন্ন দিক পর্যালোচনা করে ব্রিটিশ এই সংস্থাটি।

উত্তর কোরিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বাড়তে থাকা দ্বন্দ্ব যে যুদ্ধে পরিণত হবে তাই বলতে চেয়েছেন ‘রুসি’-র বিশেষজ্ঞরা। তাদের দাবি, এই সংঘর্ষ প্রাচ্যের মাটিতে এক রক্তাক্ত অধ্যায় তৈরি করবে।

রুসি মহাপরিচালক ম্যাককালাম চালমেরাস জানিয়েছেন, পরিস্থিতি যা তাতে কিম জং উন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প পরস্পরের দিকে বন্দুক তাক করেই রেখেছেন। শুধু গুলি ছোঁড়ার অপেক্ষা। এরফলে যুদ্ধ বেধে যাওয়ার বাস্তব পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের খবর পরিস্থিতি বুঝতে পেরেছি উত্তর কোরিয়ার বিশ্বস্ত বন্ধু চীন। তাই বন্ধুর সঙ্গে আর যৌথ বাণিজ্য করতে রাজি নয় বেজিং।

এদিকে, যুদ্ধের জন্য সেনাবাহিনীকে বিশেষ প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার সর্বময় শাসক কিম জং উন। দেশের বিভিন্ন কারখানায় উল্লেখযোগ্য হারে তৈরি হচ্ছে আগ্নেয়াস্ত্র। পাশাপাশি পরমাণু যুদ্ধের জন্যও প্রস্তুত পিয়ংইয়ং। সম্প্রতি হাইড্রোজেন বোমার বিস্ফোরণ তারই ইঙ্গিত।

কিম ও ট্রাম্পের মধ্যে দ্বন্দ্বের জেরে কোরীয় উপদ্বীপ অঞ্চলের রাজনীতি প্রবল উত্তপ্ত। সংযত না হলে উত্তর কোরিয়ায় ভয়ানক আঘাত করা হবে জাতিসংঘে এমনই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।