জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতেছে টাঙ্গাইল জেলার কিশোরীরা। আজ মঙ্গলবার কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনাল ঠাকুরগাঁও জেলাকে ৩-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিয়েছে টাঙ্গাইল জেলা অনূর্ধ্ব-১৪ নারী ফুটবল দল।

 

মঙ্গলবার ঠাকুরগাঁও এর মেয়েদের পাত্তাই দেয়নি টাঙ্গাইলের মেয়েরা। ম্যাচের ২৫ মিনিটে সাহেদা গোল করে এগিয়ে নেন টাঙ্গাইলকে। প্রথমার্ধের শেষ সময়ে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করে ব্যবধান করেন ২-০। বিরতির পর ম্যাচের ৪৬ মিনিটে উম্মতি খাতুন গোল করে ৩-০ ব্যবধানের জয় এনে দেন। চ্যাম্পিয়ন করেন টাঙ্গাইলকে।

 

চ্যাম্পিয়ন টাঙ্গাইল দলকে ৫০ হাজার ও রানার্স-আপ ঠাকুরগাঁওকে ২৫ হাজার টাকা প্রাইজমানি দেওয়া হয়েছে। প্রাইজমানি ছাড়াও মূলপর্বে অংশ নেওয়া প্রত্যেক দলকে ২০ হাজার টাকা করে অংশগ্রহণ ফি দেওয়া হয়েছে।

 

টুর্নামেন্টের সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হন ঠাকুরগাঁও এর স্বপ্না। সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন টাঙ্গাইলের সাহেদা খাতুন। তিনি মোট ৭টি গোল করেছেন। সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার পাশাপাশি টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কারও পান তিনি। স্বপ্ন ও সাহেদাকে ট্রফি এবং ওয়ালটন গ্রুপের পক্ষ থেকে হোম অ্যাপ্লায়েন্স দিয়ে উৎসাহিত করা হয়।

 

ফেয়ার প্লে ট্রফি জিতেছে রাজশাহী জেলা। আর আঞ্চলিক পর্বে সেরা ভেন্যু নির্বাচিত হয়েছে নালীফামারি।

 

ফাইনাল শেষে পুরস্কার বিতরণ করেন টুর্নামেন্টের কো-স্পন্সর ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর (গেমস এন্ড স্পোর্টস) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন), বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য, মহিলা উইং এর চেয়ারম্যান ও ফিফার নির্বাচিত সদস্য মিস মাহফুজা আক্তার কিরণ ও বাফুফের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ।

 

এই টুর্নামেন্টের কো-স্পন্সর ছিল ওয়ালটন গ্রুপ। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো এই টুর্নামেন্টের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয় ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন।

 

২৪-২৭ এপ্রিল পর্যন্ত চলে জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের আঞ্চলিক পর্ব। ছয় ভেন্যুর ছয় চ্যাম্পিয়নের সঙ্গে সেরা দুই রানার্স-আপ মিলে আটটি দল চূড়ান্তপর্বে স্থান করে নেয়।

 

আটটি দলকে দুটি গ্রুপে বিভক্ত করে ৩০ এপ্রিল থেকে ৮ মে পর্যন্ত ঢাকায় হয় চূড়ান্তপর্ব। সেখানে ‘ক’ গ্রুপে ছিল রংপুর জেলা, খুলনা জেলা, ময়মনসিংহ জেলা ও লক্ষ্মীপুর জেলা। ‘খ’ গ্রুপে রয়েছে টাঙ্গাইল জেলা, রাজশাহী জেলা, ঠাকুরগাঁও জেলা ও মাগুরা জেলা।

 

গ্রুপপর্ব শেষে ‘ক’ গ্রুপ থেকে রংপুর ও খুলনা জেলা, আর ‘খ’ গ্রুপ থেকে টাঙ্গাইল ও ঠাকুরগাঁও জেলা সেমিফাইনালে ওঠে। ৬ মে অনুষ্ঠিত সেমিফাইনালে রংপুরকে ৫-০ গোলে হারিয়ে টাঙ্গাইল ও খুলনাকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা দল ফাইনালে ওঠে।