ওয়ালটন ২৯তম জাতীয় সিনিয়র পুরুষ ও ৪র্থ জাতীয় সিনিয়র মহিলা বক্সিং প্রতিযোগিতা-২০১৮’ আজ শনিবার শেষ হয়েছে। এই প্রতিযোগিতার পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। আর মহিলা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ আনসার।

পুরুষ বিভাগে ৬টি স্বর্ণ পেয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। আর ২টি স্বর্ণ ও ১টি রৌপ্যসহ মোট ৩টি পদক পেয়ে রানার্স-আপ হয়েছে বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি। এদিকে মহিলা বিভাগে ৩টি স্বর্ণ ও ১টি রৌপ্য পদক পেয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ আনসার। আর ১টি স্বর্ণ ও ১টি রৌপ্য জিতে রানার্স-আপ হয়েছে যশোর জেলা।

প্রতিযোগিতার প্রতিটি ওজন শ্রেণির বিজয়ীদের মেডেল, সনদপত্র এবং পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রæপের পক্ষ থেকে হোম অ্যাপ্লায়েন্স দিয়ে উৎসাহিত করা হয়।

সকাল সাড়ে দশটা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত পল্টনস্থ মোহাম্মদ আলী বক্সিং স্টেডিয়াম থেকে ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করে প্রতিযোগিতার মিডিয়া পার্টনার এটিএন বাংলা।

ফাইনাল শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন বাংলাদেশ অ্যামেচার বক্সিং ফেডারেশনের সভাপতি লে. জেনারেল আজিজ আহমেদ বিজিবিএম, পিবিজিএম, বিজিবিএমএস, পিএসসি, জি, কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। তিনি টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন গ্রæপ ও অন্যান্যদের বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রতিযোগিতার টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন গ্রæপের অপারেটিভ ডিরেক্টর (গেমস এন্ড স্পোর্টস) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) এবং সহযোগী পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ।

এবারের এই ওয়ালটন জাতীয় সিনিয়র পুরুষ ও মহিলা বক্সিং প্রতিযোগিতায় সকল সার্ভিসেস, বিকেএসপি, করপোরেশন, বাংলাদেশ রেলওয়ে, জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও স্বীকৃত বক্সিং ক্লাবসমুহের ১১০টি দল অংশ নিয়েছে। যেখানে পুরুষ বক্সারের সংখ্যা ছিল ১১৭ জন। আর মহিলা বক্সার ছিল ৫০ জন। আর সার্ভিসেস দলগুলোর পুরুষ ও মহিলা বক্সারের সংখ্যা ছিল ৫৩ জন।

সিনিয়র পুরুষ বিভাগের প্রতিযোগিতা ৯টি ওজন শ্রেণিতে অনুষ্ঠিত হয়। সেগুলো হল ৪৯ কেজি, ৫২ কেজি, ৫৬ কেজি, ৬০ কেজি, ৬৪ কেজি, ৬৯ কেজি, ৭৫ কেজি, ৮১ কেজি ও ৯১ কেজি। সিনিয়র মহিলা বিভাগের প্রতিযোগিতা ৪টি ওজন শ্রেণিতে অনুষ্ঠিত হয়। সেগুলো হল ৪৯, ৫২, ৫৬, ও ৬০ কেজি।