২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয় এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে উন্নীতের লক্ষ্যে সরকারের বহুমুখী উন্নয়ন তৎপরতা ও সাফল্য জনগণের কাছে তুলে ধরতে আগামী ১১ থেকে ১৩ জানুয়ারি তিন দিনব্যাপী সকল জেলা ও উপজেলায় উন্নয়ন মেলা আয়োজন করেছে সরকার।
বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসকে সামনে রেখে ১১ জানুয়ারি সকাল দশটা ৪১ মিনিট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে একযোগে দেশব্যাপী ‘উন্নয়ন মেলা ২০১৮’ উদ্বোধন করেন।
দেশ ও বিদেশের সকল প্রান্তে থাকা বাংলাদেশের মানুষ যাতে সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমের সাথে নিজেকে যুক্ত করতে পারেন, সেই লক্ষ্যে এই মেল শুধু জেলা-উপজেলায় নয়, হবে বিদেশের মাটিতেও। বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোও সুবিধামত এ মেলার আয়োজন করবে।
এ বিষয়ে গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মূখ্য সমন্বয়ক মোঃ আবুল কালাম আজাদ প্রদত্ত নির্দেশনা অনুসারে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর সিনিয়র সচিব ও সচিববৃন্দ  সরেজমিনে মেলার মাঠপর্যায়ে তদারকি ও সমন্বয় করছেন। মেলা বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণের দায়িত্বে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্বাহী সেলের  মহাপরিচালক মোঃ খলিলুর রহমান।
পিরোজপুর উন্নয়ন মেলা সমন্বয় করছেন তথ্যসচিব 
১১ থেকে ১৩ জানুয়ারি উন্নয়ন মেলায় পিরোজপুর জেলার সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করছেন তথ্যসচিব মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ।
বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসকে সামনে রেখে ১১ জানুয়ারি সকাল দশটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে একযোগে দেশব্যাপী ‘উন্নয়ন মেলা ২০১৮’ উদ্বোধন। সেই দিনই পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলায় আয়োজিত উন্নয়ন মেলায় যোগ দেবেন তথ্যসচিব।
এর আগে ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে ফাতেহা পাঠ, পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং ময়মনসিংহ ও গোপালগঞ্জে দু’টি স্বয়সম্পূর্ণ ১০ কিলোওয়াট এফএম বেতার কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প পরিদর্শন করবেন তথ্যসচিব মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ।