শাহারিয়া শাহাদাৎ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ।।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার  ৮টি ইউনিয়নের ৩০ টি পূজামণ্ডপ প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। দেবী দুর্গার আগমনকে কেন্দ্র করে মণ্ডপগুলোতে সাজসাজ রব। সোমবার সকাল থেকে শুরু হবে ভক্তি পূজা। এদিকে প্রতিমা তৈরির কারিগররা তাঁদের নিপুণ কাজের মাধ্যমে প্রতিমার সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলেছেন। পাঁচ দিনব্যাপী চলবে
দুর্গোৎসবের কার্যক্রম।
উপজেলা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রী ডলার কুমার সাহা বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। করোনা ভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে পূজা শেষ করতে পারি এজন্য উপজেলা প্রশাসন ও পূজা মণ্ডপের দায়িত্বরত ব্যক্তিদের সাথে মতবিনিময় সভা করা হয়েছে। তিনি জানান, উপজেলায় ৩০ টি মণ্ডপের মধ্যে রহনপুর পৌর এলাকায় ৬ টি, গোমস্তাপুর ইউনিয়নে ৪ টি, চৌডালায় ৬ টি, বোয়ালিয়ায় ১ টি, আলিনগরে ১ টি, বাঙ্গাবাড়ীতে ২ টি, রহনপুরে ২ টি, রাধানগরে ৫ টি ও পাবর্তীপুরে ৩টি রয়েছে । ধর্মীয় সম্প্রতি বজায় রেখে সার্বজনীন এই উৎসব পালন করা হচ্ছে ।
গোমস্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলিপ কুমার দাস জানান,  দুর্গাপূজা নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে আইন শৃঙ্খলা যাতে অবনতি না হয়,সেজন্য পুলিশ সতর্ক থাকবে। এছাড়া প্রতিটি ইউনিয়নে পুলিশের পৃথক পৃথক টিম নিরাপত্তায় কাজ করবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার নজির বলেন, উপজেলা প্রশাসন সব রকমের প্রস্ততি নিয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি আনসার ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহীনির সাথে মোবাইল টিম পূজা মণ্ডপের নিরাপত্তায় থাকবে। কেন্দ্রীয় ও জেলা মিটিংয়ের নির্দেশ মোতাবেক কাজ করা হবে। পূজা মণ্ডপের আশেপাশে জনসমাগম ও মেলার দোকানপাট বসানো যাবে না। দশমীর দিন বিকেলের মধ্যে প্রতিমা বিসর্জ্জন দিতে হবে বলে তিনি জানান।