আধুনিক রাষ্ট্রে রূপান্তরিত করা অংশ হিসেবে দেশটির অভিজাত শ্রেণির সদস্যদের উপর ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সৌদি প্রিন্স।

দেশটির সর্বশেষ দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে বেশ কয়েকজন যুবরাজসহ নেতৃস্থানীয় ব্যবসায়ী, সরকারি কর্মকর্তা এবং হাই উচ্চ প্রোফাইল ব্যক্তিদের আটক করা হয়েছে।
এই সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়েছে। এ পর্যন্ত ২০৮ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সেখান থেকে ২০১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের ১০০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি সম্পদ জব্দ করা হয়েছে।

দেশটির তথ্য মন্ত্রণালয়ের বরাদ দিয়ে সংবাদ সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, এ পর্যন্ত ২০৮ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছিল। সেখান থেকে ৭ জনকে মুক্তি দেয়া হয়। বাকি ২০১ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

এ অভিযানে সৌদি আরবে ওয়ারেন বাফেট খ্যাত হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক প্রিন্স আল ওয়ালেদ বিন তালালসহ রাজ পরিবারের একাধিক সদস্য ও সাবেক-বর্তমান ৩৮ মন্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে গ্রেফতারের পাশাপাশি অভিযুক্তদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট স্থগিত (ফ্রিজ) করা হচ্ছে।

ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানায়, দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের সঙ্গে পরিচিত সূত্র বুধবার নতুন ধরপাকড়ের খবর জানিয়েছে।

গত শনিবার দুর্নীতি বিরোধী অভিযান শুরুর পর সৌদি রাজ পরিবারের সদস্য, সরকারি কর্মকর্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী মিলিয়ে কয়েক ডজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থপাচার, ঘুষ লেনদেন, চাঁদাবাজি ও সরকারি অফিসকে ব্যবহার করে ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিল করার অভিযোগ আনা হয়েছে। এ অভিযানের মধ্যে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান ফলপ্রসূ হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছে সৌদি তথ্য মন্ত্রণালয়।

তারা বলছেন, অনুসন্ধানে গত তিন বছরে প্রায় ১০০ বিলিয়ন ডলার দুর্নীতির তথ্য পাওয়া গেছে। ওইসব সম্পদ জব্দ করা হয়েছে।