মহান মে দিবস উপলক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিল্স এর ব্যবস্থাপনায় গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি-২০১৫ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সমাজ সচেতনতা শীর্ষক জাতীয় সেমিনার অনুষ্ঠিত

মহান মে দিবস-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এর কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিল্স এর ব্যবস্থাপনায় ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি-২০১৫ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সমাজ সচেতনতা’ শীর্ষক জাতীয় সেমিনার আজ ৩ মে ২০১৮, বৃহস্পতিবার, বেলা ২টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়।
বিল্স ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শুক্কুর মাহমুদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মোঃ সামছুজ্জামান ভ‚ইয়া এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় যুগ্ম সচিব মোঃ আমিনুল ইসলাম। এছাড়া ঢাকা জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার অধিশাখার উপপরিচালক (উপসচিব) মোঃ জিয়াউল হক, বিল্স যুগ্ম মহাসচিব ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, জাতীয় গার্হস্থ্য নারী শ্রমিক ইউনিয়ন উপদেষ্টা আবুল হোসাইন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এন্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষক গওহর নঈম ওয়ারা, ব্লাস্ট মহাপরিচালক এড. মোঃ বরকত আলী, শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ যুগ্ম সমন্বয়কারী চৌধুরী  আশিকুল আলম, বাংলাদেশ লেবার রাইটস জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি কাজী আব্দুল হান্নান সহ বিল্স নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ সুলতান উদ্দিন আহম্মদ ট্রেড ইউনিয়ন ও মানবাধিকার সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ, কেন্দ্রীয় মনিটরিং সেল, অক্সফাম বাংলাদেশ, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, সিটি কর্পোরেশনের প্রতিনিধিগণ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।
বক্তারা গৃহকর্মীদের কর্মক্ষেত্রে মানবিক ঝুঁকির বিষয়টি উলে­খ করে বলেন, এ ক্ষেত্রে শিশু গ্রহশ্রমিকদের বিপদ সবচেয়ে বেশী, কেননা তাদের দীর্ঘ সময় কাজে নিয়োজিত রাখা হয়, ক্ষেত্রবিশেষে ঘরে আটকে রাখা হয় এবং তারাই সবচেয়ে বেশী নির্যাতনের শিকার হয়। তারা বলেন, গৃহশ্রমিকদের জন্য ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার নিশ্চিত করা কঠিন, তবে এটি বাস্তবায়নে ট্রেড ইউনিয়নসহ সকলকেই এগিয়ে আসতে হবে। বক্তারা শ্রম আইনের মধ্যে গৃহশ্রমিকদের জন্য একটি আলাদা অনুচ্ছেদ যুক্ত করার প্রয়োজনীয়তার বিষয়টিও তুলে ধরেন। এ ছাড়া অপরাধ সংঘটিত হলে সে ক্ষেত্রে দ্রুত আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের ওপর জোর দিয়ে তারা বলেন, যে সমস্ত বাসায় গৃহকর্মীরা কাজে নিয়োজিত সেখানে গৃহকর্তা/গৃহকত্রীদের কাছে গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি-২০১৫ পৌঁছে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি বিষয়।
অনুষ্ঠানে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাগণ, জাতীয় ট্রেড ইউনিয়ন ফেডারেশন, বিল্স, মানবাধিকার ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, গৃহশ্রমিক সংগঠক ও গৃহশ্রমিক, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উক্ত সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।