গাজীপুর সিটি করপোরেশন (গাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীর পক্ষে মন্ত্রী-এমপিরা ভোট চেয়ে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছেন, গাজীপুরের মৌচাকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে নির্বাচনী যৌথসভায় সংসদ সদস্য (এমপি) জাহাঙ্গীর কবির নানক ও বাহাউদ্দিন নাছিম আওয়ামী লীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমকে বিজয়ী করতে জনগণের কাছে ভোট চেয়েছেন। যা নির্বাচনী আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

রোববার (২৯ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ অভিযোগ করেন।

বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন, আসন্ন খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে ব্যর্থ হয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এখন পর্যন্ত ওই দুই সিটিতে নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি সংস্থাটি।

‘নির্বাচনী প্রচারণা শুরু হলেও দুই সিটিতে ক্ষমতাসীনদের অস্ত্রের ছড়াছড়ি এখনও চলছে। আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ অভিযোগ জমা দিলেও ইসি অন্ধের ভূমিকা পালন করছে।’

তিনি বলেন, মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় কারাবন্দি খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে আরও অবনতি হয়েছে। দলের মহাসচিবসহ সিনিয়র নেতারা তার সঙ্গে দেখা করার পর খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক পরিস্থিতি তুলে ধরেছেন।

‘এখনও পছন্দ অনুযায়ী হাসপাতাল ও ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের দিয়ে গুরুতর অসুস্থ খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যবস্থা না করে তিলে তিলে কষ্ট দিয়ে সরকার প্রতিহিংসা বাস্তবায়নের দিকে এগোচ্ছে। এ নিয়ে জনমনে এখন নানা প্রশ্ন ও শঙ্কা তৈরি হয়েছে।’

খালেদার সুচিকিৎসার দাবি জানিয়ে রিজভী বলেন, আমি আবারও খালেদা জিয়াকে তার পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

তারেক রহমান ইস্যুতে ক্ষমতাসীনদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নিয়ে ক্ষমতাসীনদের অন্তহীন ষড়যন্ত্র বারবার ব্যর্থ হয়েছে। এখন প্রধানমন্ত্রীর একজন উপ প্রেস সচিবের ফেসবুক আইডি থেকে নানা মিথ্যা ও

বানোয়াট গল্প বানিয়ে প্রচার করা হচ্ছে। এ ধরনের ঘটনায় আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম ও অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, প্রচারণা সম্পাদক শহীদ উদ্দিন এ্যানী, সহ-দফতর সম্পাদক মনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।