তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, গণমাধ্যম হলো গণতন্ত্রের পাহারাদার। গণমাধ্যম জনগণের কণ্ঠস্বর হবে, জাতির বিবেক হবে। কোন উস্কানির অংশ হবে না।
সবসময় নিরপেক্ষতা ও স্বাধীনতা বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, গণমাধ্যম একাত্তর ও নব্বইয়ের গণ-আন্দালনের সময় যে ভূমকা রেখেছিল বর্তমানে সে রকম ভুমিকা রাখা প্রয়োজন।
তথ্যমন্ত্রী আজ শনিবার বগুড়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন। ক্লাবের সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শংকরের সভাপতিত্বে এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল আলম নয়ন। সভাশেষে তথ্যমন্ত্রী ক্লাবের ভবন নির্মাণের স্থান পরিদর্শন করেন।
হাসানুল হক ইনু বলেন, গণতন্ত্র গতিশীল রাখতে সাংবাদিকদের বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে। সাম্প্রদায়িকতার অন্ধকার থেকে বের করে দেশকে আলোর পথে নেয়ার কাজ চলছে। সাম্পদায়িকতার জঞ্জাল, সামরিক সরকারের জঞ্জাল আমাদের রাজনীতির ওপর পড়ে আছে।
সব জঞ্জাল পরিস্কার করতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, গণতন্ত্রের জন্য যা যা ক্ষতিকারক তা অপসারণ করতে হবে, নির্ভেজাল গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, এই মুহূর্তের চ্যালেঞ্জ হলো সাম্প্রায়িক শক্তি, জঙ্গি সন্ত্রাস, আগুন সন্ত্রাসীদের রাজনীতি থেকে বিদায় করা। দেশে জঙ্গিবাদ আগুন সন্ত্রাসের মদদদাতাদের বিরুদ্ধে স্বোচ্চার হয়ে ওঠা। দেশের মানুষ শান্তি চায়, আগুন সন্ত্রসীদের হাত থেকে রেহায় পেতে চায়। সে ক্ষেত্রে গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের বলিষ্ঠ ভূমিকা প্রয়োজন।
তিনি বগুড়া প্রেসক্লাবের ভবন নির্মাণের জন্য জায়গা বরাদ্দ দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ভবন নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে।
তথ্যমন্ত্রী বিকেলে কাহালুর শেখাহারে জাসদের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।