ওয়ালটন গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় ও বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট কনফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় আগামীকাল বুধবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ‘ওয়ালটন জাতীয় মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতা-২০১৭’। চারদিন ব্যাপী এই প্রতিযোগিতা শনিবার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

 

প্রতিযোগিতার বিষয়ে বিস্তারিত জানানোর জন্য আজ মঙ্গলবার জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষকতায় ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর (হেড অব স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন), বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট কনফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হাসান উজ্জামান মনিসহ অন্যান্যরা।

 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় এবারের এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ পুলিশ, সেনাবাহিনীসহ দেশের বিভিন্ন জেলাসহ ৫৮টি মার্শাল আর্ট ক্লাব ও সংস্থার মোট ১ হাজার ২৫০ জন খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করবে। এবারের এই মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় এশিয়ান গেমসের ডিসিপ্লিন ‘‘জুজিৎসু, পেনচাক সিলাত, কোরাশ, স্যাম্বো’সহ কারাতে, কুংফু, ভবিনাম, খিউকুশীনকাই, আত্মরক্ষা, শক্তিমত্তা প্রদর্শনী, অস্ত্রশস্ত্র ক্যাটাগোরিতে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এই প্রতিযোগিতায় যারা ভালো করবে তারা ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া শেখ কামাল স্মৃতি আন্তর্জাতিক মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে। যেখানে ৩০টি দেশ অংশ নিবে। প্রতিযোগিতার বিভিন্ন ক্যাটাগোরিতে স্বর্ণ, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক দেওয়া হবে।

 

সংবাদ সম্মেলনে ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) প্রতিযোগিতার বিষয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট কনফেডারেশনের সঙ্গে এর আগেও আমরা কাজ করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় এবারও সম্পৃক্ত হয়েছি। জাতীয় প্রতিযোগিতা একটি বড় আয়োজন। এক ধরনের ট্যালেন্ট হান্ট প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন সংস্থা ও জেলার ১২৫০ জন প্রতিযোগী অংশ নিবে। এই প্রতিযোগিতায় যারা ভালো করবে তারা আসন্ন শেখ কামাল স্মৃতি আন্তর্জাতিক মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে। অংশ নিতে পারবে আগামী বছর ইন্দোনেশিয়ার অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া প্রতিযোগিতায়। আমরা চাই তরুণ খেলোয়াড়দের শরীরগঠনের পাশাপাশি নৈতিক গঠনটাও হোক। পাশাপাশি তারা আত্মরক্ষার বিষয়েও জোর দিক। যেহেতু মার্শাল আর্ট একটি আত্মরক্ষামূলক খেলা, সেহেতু তরুণদের এই খেলার প্রতি আকৃষ্ট করা উচিত। আশা করছি জমজমাট একটি প্রতিযোগিতা হবে। আমি এই প্রতিযোগিতার সর্বাঙ্গিন সাফল্য কামনা করছি।’

 

বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট কনফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হাসান উজ্জামান মনি বলেন, ‘আবারো ওয়ালটন গ্রুপ আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর জন্য ধন্যবাদ। এবারের এই প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন সংস্থা ও জেলার ৫৮টি মার্শাল আর্ট দলের হয়ে ১ হাজার ২৫০ জন প্রতিযোগি অংশ নিবে। এশিয়ান গেমসের ডিসিপ্লিসহ বিভিন্ন জনপ্রিয় ক্যাটাগোরিতে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। ২২ নভেম্বর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট তথা জুডো ও কারাতের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রবর্তক আওলাদ হোসেন, ২৩ নভেম্বর থাকবেন অত্র কনফেডারেশনের সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, ২৪ নভেম্বর উপস্থিত থাকবেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান, এমপি।’