ওয়ালটন গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় ও বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট কনফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় আজ বুধবার থেকে শুরু হয়েছে ‘ওয়ালটন জাতীয় মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতা-২০১৭’। চারদিন ব্যাপী এই প্রতিযোগিতা শনিবার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পুরাতন ভবনের নিচতলার জিমনেসিয়ামে সকালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশে মার্শাল আর্ট তথা জুডো ও কারাতের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রবর্তক আওলাদ হোসেন। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর (হেড অব স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন)। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মার্শাল আর্ট কনফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হাসান উজ্জামান মনিসহ ফেডারেশনের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ।

আজ বুধবার কারাতে প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। এই ডিসিপ্লিনে বিভিন্ন সংস্থা ও ক্লাবের তিন শতাধিক প্রতিযোগী অংশ নিয়েছে। তাদের বাছাই আজ শেষ হয়েছে। আগামীকাল চূড়ান্তপর্বে পদকের জন্য লড়াই করবে তারা। কারাতে ছাড়াও এবারের এই মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় এশিয়ান গেমসের ডিসিপ্লিন ‘‘জুজিৎসু, পেনচাক সিলাত, কোরাশ, স্যাম্বো’সহ কুংফু, ভবিনাম, খিউকুশীনকাই, আত্মরক্ষা, শক্তিমত্তা প্রদর্শনী, অস্ত্রশস্ত্র ক্যাটাগোরিতে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। আগামীকাল তিন ভেন্যুতে বিভিন্ন ডিসিপ্লিনের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। হবে পদকের ফয়সালা।

এবারের এই ওয়ালটন জাতীয় মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ পুলিশ, সেনাবাহিনীসহ দেশের বিভিন্ন জেলার ৫৮টি মার্শাল আর্ট ক্লাব ও সংস্থার মোট ১ হাজার ২৫০ জন খেলোয়াড় অংশ নিয়েছে। এই প্রতিযোগিতায় যারা ভালো করবে তারা ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া শেখ কামাল স্মৃতি আন্তর্জাতিক মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে। যেখানে ৩০টি দেশ অংশ নিবে। প্রতিযোগিতার বিভিন্ন ক্যাটাগোরিতে স্বর্ণ, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক দেওয়া হবে।