ফের বিস্ফোরক হৃতিক রোশন। কঙ্গনা রানাওয়াতের বিরুদ্ধে আবার মুখ খুললেন তিনি।
মুখ খুলেই ছুঁড়লেন মিসাইল। এই নিয়ে তিনি ২৯ পাতার একটি অভিযোগপত্রও জমা দিয়েছেন তিনি।

অভিযোগপত্রটি জমা দিয়েছেন হৃতিকের আইনি উপদেষ্টা মহেশ জেঠমালানি। অভিযোগপত্রে বলা আছে, এখনও হৃতিককে মেইল পাঠান কঙ্গনা। মেইলে এমন কিছু থাকে যেগুলো ঘনিষ্ঠ কাউকেই পাটানো সম্ভব। সেগুলির প্রতিটিতে যৌন সম্পর্কিত বিষয় স্পষ্টভাবে বলা আছে। হৃতিককে “চিরন্তন প্রেমিক” বলেও উল্লেখ করেছেন কঙ্গনা।

অভিযোগে বলা হয়েছে, ২০০৯ সাল থেকে ২০১৩ সল পর্যন্ত কঙ্গনা আর হৃতিকের মধ্যে যোগাযোগ ছিল। পেশাগত কারণেই যোগাযোগ রেখেছিলেন তাঁরা। কিন্ত ২০১৪ সালে হৃতিককে হিন্দিতে অশালীন বার্তা পাঠান কঙ্গনা। শুধু কঙ্গনা নয়, কঙ্গনার দিদি রঙ্গোলির থেকেও আশ্চর্য কিছু মেইল পান হৃতিক। সেখানে তাঁকে “মানসিক ও শারিরীকভাবে ধর্ষণ” করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন হৃতিক। বিষয়টি নিয়ে হৃতিক আলোচনায় যেতে চেয়েছিলেন। সাইবার সেলের সঙ্গেও যোগাযোগ করেন তিনি। কিন্তু অদ্ভুত মেইলগুলি পাওয়ার পর এবং মিথ্যে অভিযোগ পাওয়ার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন এবার এটি ক্রমশ অসহ্যকর হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়, কঙ্গনা অন্য কারোর সঙ্গে যোগাযোগ করছে। সেটি কোনওভাবেই হৃতিক নয়। তবে অভিযোগটি অস্বীকার করেছেন কঙ্গনা। তিনি জানিয়েছেন, এমন কোনও ব্যক্তির অস্তিত্ব নেই। চাইলেও অভিযোগকারী এমন কাউকে খুঁজে পাবে না।