ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড মার্সেলের পৃষ্ঠপোষকতায় ও বাংলাদেশ শরীরগঠন ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ‘মার্সেল কাপ উন্মুক্ত শরীরগঠন প্রতিযোগিতা-২০১৭।’ এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো এই প্রতিযোগিতায় পৃষ্ঠপোষকতার হাত বাড়িয়ে দিল ওয়ালটন গ্রুপ। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পুরাতন ভবনের নিচতলায় অনুষ্ঠিতব্য তিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতা বৃহস্পতিবার চূড়ান্তপর্ব ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

তার আগে আজ সোমবার প্রতিযোগিতার বিষয়ে বিস্তারিত জানানোর জন্য বাংলাদেশ অলিম্পিক ভবনের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর (হেড অব স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন), বাংলাদেশ শরীরগঠন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মিস্টার বাংলাদেশ মো. নজরুল ইসলামসহ ফেডারেশনের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় দেশের ৬০ টি ক্লাবের ২০০ জন বডিবিল্ডার ছয়টি ওজন শ্রেণিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। প্রতিযোগিতার ওজন শ্রেণিগুলো হল- ৬০ কেজি, ৬৫ কেজি, ৭০ কেজি, ৭৫ কেজি, ৮০ কেজি ও ৮০+ কেজি। প্রতিটি ক্যাটেগোরিতে প্রথম থেকে ষষ্ঠ স্থান অর্জকারীদের মেডেল, সনদপত্র ও অর্থ পুরস্কার দেওয়া হবে।

প্রথম স্থান অর্জনকারী পাবেন মেডেল, ১০ হাজার টাকা অর্থ পুরস্কার ও সদনপত্র। দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী পাবেন মেডেল, ৫ হাজার টাকা অর্থ পুরস্কার ও সদনপত্র। তৃতীয় স্থান অর্জনকারী পাবেন মেডেল, ৩ হাজার টাকা অর্থ পুরস্কার ও সদনপত্র। চতুর্থ থেকে ষষ্ঠ স্থান অর্জনকারীরা পাবেন ওয়ালটন ব্র্যান্ডের হোম অ্যাপ্লায়েন্স ও সদনপত্র।

সংবাদ সম্মেলনে পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর (হেড অব স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার) ও বাংলাদেশ শরীরগঠন ফেডারেশনের সহ-সভাপতি এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) বলেন, ‘বাংলাদেশ শরীরগঠন ফেডারেশনের সঙ্গে বরাবরই আমরা ওয়ালটন গ্রুপ সম্পৃক্ত হচ্ছি। গেল দুই বছর মার্সেল এর ব্যানারে অনুষ্ঠিত হয়েছে মার্সেল কাপ শরীরগঠন প্রতিযোগিতা। এবারও মার্সেল এর ব্যানারে তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এই প্রতিযোগিতা। আমরা ওয়ালটন গ্রুপ বিশ্বাস করি সুস্থ্য দেহে সুস্থ্য মন থাকে। আর শরীর সুস্থ্য রাখতে শরীরগঠনের ভূমিকা অনেক। তাছাড়া মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে শরীরগঠনের ভূমিকা অনস্বীকার্য। বাংলাদেশের তরুণ সমাজকে শরীরগঠনে উৎসাহিত করার মাধ্যমে তাদেরকে মাদক ও অন্যান্য খারাপ প্রবৃত্তি থেকে দূরে সরিয়ে আনা সম্ভব। সে লক্ষ্যে আমরা শুধু বাংলাদেশ শরীরগঠন ফেডারেশনই নয়, প্রায় সবগুলো ফেডারেশনের সঙ্গেই নিয়মিত সম্পৃক্ত হওয়ার চেষ্টা করছি। আমি এই প্রতিযোগিতার সর্বাঙ্গিন সাফল্য কামনা করছি।’

ওয়ালটন গ্রুপকে ধন্যাবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ শরীরগঠন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ওয়ালটন গ্রুপ সব সময় আমাদের পাশে থাকায় তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। ওয়ালটন গ্রুপ আমাদের পাশে না থাকলে এই ধরনের প্রতিযোগিতা থেকে শুরু করে উন্নয়ন কার্যক্রম করা সম্ভব হত না। ওয়ালটন গ্রুপ শুধু আমাদের ফেডারেশনই নয়, পৃষ্ঠপোষকতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে ক্রীড়াঙ্গনকে সচল রেখেছে। সে জন্য ক্রীড়া সংগঠকদের পক্ষ থেকে ওয়ালটন গ্রুপকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আশা করব ভবিষ্যতেও তাদেরকে এভাবে আমরা পাশে পাব।’