উত্তর কোরিয়া ষষ্ঠ পারমাণবিক পরীক্ষা চালিয়েছে বলে সন্দেহ করছে প্রতিবেশি দেশগুলো। বড় ধরনের একটি ভুকম্পনের প্রেক্ষিতে এই সন্দেহের তৈরি হয়েছে। ৬ দশমিক ৩ মাত্রার এই ভুকম্পনকে মানবসৃষ্ট বলে দাবি করেছে উত্তর কোরিয়ার দুই প্রতিবেশি জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া। যা সৃষ্টি হয়েছে পারমাণবিক পরীক্ষার কারণে।
উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত গণমাধ্যমে আরও উন্নত প্রযুক্তির হাইড্রোজেন বোমা তৈরির দাবির পরপরই এই ভুকম্পন হয়। দক্ষিণ কোরিয়া দাবি করেছে, উত্তর কোরিয়ার কিজু এলাকায় হওয়া ভুকম্পনটি মানবসৃষ্ট। চীনের ভুকম্পন কর্তৃপক্ষও একই দাবি করেছে।
ভুকম্পনের পর দক্ষিণ কোরিয়ার সিকিউরিটি কাউন্সিল জরুরি বৈঠকে বসেছে। জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তাদের তিনটি সামরিক বিমান ভূমিকম্পের কারণে সৃষ্ট বিকিরণ মাপতে রওয়ানা হয়েছে। জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই গত বছরের সেপ্টেম্বরে সর্বশেষ পারমানবিক পরীক্ষা চালায় পিয়ংইয়ং। এরপরও তারা ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন মাত্রার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে আসছে।