অত্যন্ত উদ্বেগের সাথে জানাচ্ছি যে, গত ১ থেকে ২২ অক্টোবর ২০১৭ সহ বিগত দিনে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান পরিচালনাকালে সারাদেশে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক জেলেকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড প্রদান ও আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে। চরম দারিদ্রগ্রস্ত এই জেলে পরিবারগুলোর উপার্জনক্ষম মানুষেরা কারাগারে থাকায় পরিবারগুলো তাদের একমাত্র জীবিকা হারিয়ে চরম মানবেতর দিনযাপন করছে; পরিবারের শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং খাদ্য নিরাপত্তা চরমভাবে ব্যহত হচ্ছে; একই সাথে পরিবারগুলো ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। মৎস্য আহরণের ভরা মৌসুমে জেলেরা কারাগারে থাকায় উপার্জনের অভাবে পরিবারগুলোর ভবিষ্যৎ সুরক্ষা মারাত্মক হুমকিতে পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে অবিলম্বে আটককৃত জেলেদের মুক্তিদান এবং পরিবারগুলোর সুরক্ষায় সরকারের প্রতিশ্রুত যথাযথ পুনর্বাসন কর্মসূচি গ্রহণের জন্য সরকারের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি।

 

বিভিন্ন গণমাধ্যমে মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তাদের সরাসরি সাক্ষাতকারে আমরা জানতে পারছি যে, জেলে পরিবারগুলো যে পরিমাণ সরকারী সহায়তা দরকার ততটুকু পায়নি। যথাযথ পুনর্বাসন কর্মসূচী সুসম্পন্ন না করে জেলেদেরকে কারাদন্ড প্রদান কাঙ্খিত নয় এবং জেলেদেরকে প্রদত্ত কারাদন্ডের মেয়াদ নিষেধাজ্ঞার মেয়াদের অধিক হওয়াও বাঞ্ছনীয় নয়। এই ধরনের কঠোর আইন দেশের একেবারে প্রান্তিক শ্রমজীবি গোষ্ঠীকে আরও প্রান্তিক অবস্থানে ঠেলে দিচ্ছে যা কখনোই কাম্য নয়। এমতাবস্থায় জেলেদের জন্য প্রযোজ্য আইনেও ব্যাপক সংস্কার আনা প্রয়োজন বলে মনে করি এবং যে প্রভাবশালী গোষ্ঠী নিষেধাজ্ঞার মৌসুমেও জেলেদেরকে মৎস্য আহরণে বাধ্য করে তাদেরকে আইনের আওতায় কঠোর শাস্তি প্রদানের দাবি জানাচ্ছি।